বাসভাড়া নিয়ে বিআরটিএ-মালিকদের দর কষাকষি

38

যুগবার্তা ডেস্কঃ বেশ কয়েকদিন হয়ে গেছে দেশের বাজারে জ্বালানির দাম কমেছে। কিন্তু এখনো কমানো হয়নি গণপরিবহনে ভাড়া। বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) বলছে, ডিজেলচালিত গণপরিবহনে বাসভাড়া প্রতি কিলোমিটারে ৩ পয়সা কমাতে। আর পরিবহন মালিকরা বলছে, ২ পয়সা কমাতে। এ নিয়ে বিআরটিএ ও পরিবহন মালিকদের মধ্যে চলছে দর কষাকষি।
সোমবার বিআরটিএর সদর দফতরে ভাড়া বিশ্লেষণ কমিটির বৈঠক শেষে কিলোমিটারে তিন পয়সা ভাড়া কমানোর বিষয়ে জানান কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম।
প্রসঙ্গত, সরকার এই ভাড়া কার্যকর করলেও তা ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরীতে চলাচলকারী বাসের জন্য প্রযোজ্য হবে না। কারণ এই দুই মহানগরীর বাসগুলো সিএনজিতে চলে বলে এগুলোর জন্য আলাদা করে ভাড়া নির্ধারণ করে দেওয়া আছে।
সোমবারের প্রস্তাবিত ভাড়া কার্যকর হলে এটা দূরপাল্লার রুটের বাসগুলোর জন্য প্রযোজ্য হবে। দূরপাল্লার রুটের বাসগুলো ডিজেলচালিত বলে গণ্য করা হয়।
বর্তমানে ডিজেলচালিত বাসে ভাড়া কার্যকর আছে ১ টাকা ৪৫ পয়সা। সিএনজি চালিত বাসের জন্য ভাড়া নির্ধারিত আছে বড় বাসে ১ টাকা ৭০ পয়সা এবং মিনিবাসে ১ টাকা ৬০ পয়সা।
এদিকে বিআরটিএ বাসভাড়া তিন পয়সা কমানোর প্রস্তাব করলেও পরিবহন মালিক সমিতির নেতারা দুই পয়সা কমানোর দাবি করেছেন।
এ ব্যাপারে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েতউল্লাহ সোমবার বলেন, আমরা প্রস্তাব করেছি প্রতি কিলোমিটারে দুই পয়সা কমানোর। কারণ দুই পয়সা কমালে মালিকদের আয়-ব্যয় প্রায় সমান থাকবে। আর তিন পয়সা কমালে মালিকদের লোকসান হবে। কেননা ভাড়ার বিষয়টি কেবল জ্বালানির ওপর নির্ভর করে না। এর সঙ্গে আরও অন্তত বিশটি বিষয় জড়িত আছে। আমরা এখন মন্ত্রীর সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি।’
বিশ্ববাজারে জ্বালানির দাম কমার দু’বছর পর সরকার বাংলাদেশে ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটারে তিন টাকা এবং অকটেন ও পেট্রোলের দাম লিটারপ্রতি দশ টাকা কমানোর ঘোষণা দেয়। ২৫ এপ্রিল রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে ওই ঘোষণা কার্যকর হয়। এর আগে ফার্নেস অয়েলের দাম ১৮ টাকা কমিয়ে ৪২ টাকা নির্ধারণ করা হয় ৩১ মার্চ।