বাম গণতান্ত্রিক জোটের সংবাদ সম্মেলন

স্টাফ রিপোটার: বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সাম্প্রদায়িক হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত কুমিল্লা, হাজীগঞ্জ, চৌমুহনীতে বিভিন্ন পূজামন্ডপ, মন্দির, বাড়ীঘর-দোকানপাট পরিদর্শন এর অভিজ্ঞতা দেশবাসীর সামনে তুলে ধরতে এবং আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণার জন্য আজ ১৯ অক্টোবর এক সংবাদ সম্মেলন করেছে। ১৭ অক্টোবর বাম জোটের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক কমরেড বজলুর রশীদ ফিরোজের নেতৃত্বে ৬ সদস্যের প্রতিনিধি দল এসব এলাকা পরিদর্শনে যান। প্রতিনিধি দলের অন্যান্য সদস্যরা হলো আব্দুল্লাহ কাফী রতন, মোশাররফ হোসেন নান্নু, মানস নন্দী, আকবর খান ও বাচ্চু ভূইয়া।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক ও বাসদ নেতা কমরেড বজলুর রশীদ ফিরোজ। সংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন সিপিবির সাধারণ সম্পাদক কমরেড শাহ আলম, সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন সিপিবি প্রেসিডিয়াম সদস্য কমরেড আব্দুল্লাহ আল কাফী রতন, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগ সাধারণ সম্পাদক কমরেড মোশাররফ হোসেন নান্নু, বাসদ (মার্কসবাদী) নেতা কমরেড মানস নন্দী, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য কমরেড আকবর খান, গণসংহতি আন্দোলনের সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য বাচ্চু ভুইয়া, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির শহীদুল ইসলাম সবুজ, সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের নির্বাহী সভাপতি আব্দুল আলী, ওয়ার্কার্স পার্টি (মার্কসবাদী) নেতা বিধান রায়, বাসদ নেতা রাজেকুজ্জামান রতন, ইউসিএলবি নেতা অধ্যাপক আব্দুস সাত্তার।
সংবাদ সম্মেলন থেকে সারা দেশে অব্যাহত সাম্প্রদায়িক হামলার জন্য সরকারকে দায়ী করে অবিলম্বে বিভিন্ন ধর্মের লোকদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হওয়ায় ব্যর্থতার দায় নিয়ে অবিলম্বে পদত্যাগ করার দাবি জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকারের ইঙ্গিত ছাড়া কয়েক দিন ধরে দেশব্যাপী অব্যাহতভাবে সাম্প্রদায়িক হামলা চলতে পারে না। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীও সরকারের হুকুম ছাড়া নিরব ভূমিকা পালন করতে পারে না।