বরিশাল-বানারীপাড়া সড়কের গুঠিয়া ষ্টীল ব্রীজ মরণ ফাঁদ

2609

যুগবার্তা ডেস্কঃ বরিশাল-বানারীপাড়া সড়কের গুঠিয়ার
ষ্টীল ব্রীজ যেন এখন মরণ ফাঁদে পরিনত হয়েছে। ব্রীজটির পশ্চিম প্রান্তে উজিরপুরের গুঠিয়া বন্দর ও পূর্ব প্রান্তে বাবুগঞ্জের দারোগার হাট। ব্রীজাটিঅনেক দিন পূর্ব থেকেই ষ্টীল পাত ভেঙ্গে গেছে। বর্তমানে যানবাহন ঝুকিঁ নিয়ে চলাচল করে ও পথচারীদের জন্য বিপদজনক হয়ে পড়েছে। এলাকাবাসী চরম ঝুঁকি নিয়ে ব্রীজটি পারাপারে বাধ্য হচ্ছে। ব্রীজগুলোতে শত শত ছিদ্র, বহু স্থানে লোহার
পাত ভেঙ্গে গিয়ে ডেবে পড়েছে। বেরিয়ে পড়েছে ধারালো অংশ। সওজ কর্তৃপক্ষ মাঝে মাঝেই ঝালাই করে ভেঙ্গে যাওয়া লোহার পাতগুলো জোড়া লাগায়। কিন্তু তা বেশী দিন টিকে না। পটি মারতে মারতে ব্রীজটির ভগ্নদশা এতটাই নাজুক হয়ে পড়েছে; যে এখন বাস, ট্রাক, মাইক্রো, টেম্পু, মটর সাইকেল, ভ্যান-রিক্সা কোন কিছুই
চলাচলে নিরাপদ নয়। এতে করে যেকোনো সময় বড় ধরনের দূর্ঘটনায় কেড়ে নিতে পারে অনেক তাজা প্রাণ। এরইধারাবাহিকতায় কয়েকদিন পূর্বে রাত ৮ টার গুঠিয়ার মজিদ ফকিরের ছেলে ইউনুস ফকির নামক এক পথচারী ব্রীজের উপর দিয়ে পায়ে হেঁটে ব্রীজটি অতিক্রম করতে গেলে দূর্ঘটনার শিকার হন। ভাংগা ষ্টীলের ফাঁকায় পা পরে গেলে উঠাতে না পেরে ডাক চিৎকার দিলে অন্য পথচারীরা এগিয়ে এসে শাবল দিয়ে পাত কেটে তার পা বের করতে হয়। অতিরিক্ত মাল ভর্তি যানবাহন চলাচলের
নিষেধাজ্ঞা থাকলেও মানছে না ট্রাক চালক সহ অন্যান্য যানবাহন চালকরা। এ ব্রীজটি দিয়ে প্রতিদিন শতশত যান চলাচল করে। গুঠিয়া বন্দর কমিটির সাবেক সভাপতি ও বন্দর জামে মসজিদ সভাপতি মোঃ আফজাল হোসেন হাওলাদার বলেন, বর্তমানে
ব্রীজটির লাজুক অবস্থা; ব্রীজটি সংস্কার বা পুনঃনির্মাণ আশু প্রয়োজন। তা না হলে যে কোন সময় যানবাহনসহ ব্রীজটি ভেঙ্গে পড়ে প্রাণনাশের সম্ভাবনা রয়েছে। এলাকাবাসীর একান্ত প্রানের দাবী ঝুঁকিপূর্ণ ব্রীজটির সংস্কার বা পুনঃনির্মাণ প্রয়োজন । শহীদুল ইসলাম বাবু, উজিরপুর