বরিশালে শিকল দিয়ে বেঁধে শরীরে ছ্যাকা দিয়ে হত্যার চেষ্টা এক গৃহবধুকে: পাষন্ড স্বামী গ্রেফতার

95

কল্যাণ কুমার চন্দ,বরিশালঃ দাম্পত্য কলহের জের ধরে গভীর রাতে দুই সন্তানের জননী এক গৃহবধূকে শিকল দিয়ে বেঁধে লোহার গরম রড ও খুনতি দিয়ে শরীরের বিভিন্নস্থানে ছ্যাকা দিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনকারী পাষন্ড স্বামী বাদল মৃধাকে বৃহস্পতিবার রাতে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বরিশালের গৌরনদী মডেল থানার এসআই রঞ্জন অভিযান চালিয়ে শরিফাবাদ এলাকা থেকে বাদল মৃধাকে গ্রেফতার করেছে।
নির্যতিত গৃহবধু,পুলিশ ও স্থানিয়রা জানিয়েছেন উজিরপুর উপজেলার শোলক ইউনিয়নের যুগীহাটি গ্রামের আজিজ হাওলাদারের কন্যা তাসলিমা বেগমের সাথে দীর্ঘদিন পূর্বে গৌরনদীর মাহিলাড়া ইউনিয়নের শরিফাবাদ গ্রামের মৃত ওহাব আলী মৃধার পুত্র প্রটকল (ভাড়ায় মোটরসাইকেল) চালক বাদল মৃধার বিয়ে হয়। বিয়ের পর কারণে অকারণে তাদের মধ্যে দাম্পত্য কলহ মাত্রাতিরিক্ত ভাবে বৃদ্ধি পায় এবং এর জের ধরেই মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে বাদল মৃধা ও তার পরিবারের সদস্যরা পরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে গৃহবধূ তাসলিমা বেগমকে শিকল দিয়ে বেঁধে লোহার গরম রড এবং খুনতি দিয়ে শরীরের বিভিন্নস্থানে ছ্যাকা দেয়ার পর ক্ষতস্থানে লবন ও মরিচের গুড়া ছিটিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে। বুধবার ভোরে মুর্মুর্ষ অবস্থায় গৃহবধূ তাসলিমা বেগমকে (২৯) তার বাবার বাড়ির লোকজনে উদ্ধার করে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করেন। এ খবর পেয়ে বরিশালের জেলা প্রশাসক ড. মোঃ গাজী সাইফুজ্জামান হাসপাতালে ছুটে গিয়ে নির্যাতিত গৃহবধুর দ্রুত সু চিকিৎসার ব্যাবস্থা করেন এবং চিকিৎসা ব্যায়ভার চালানোর জন্য তাৎক্ষনিক জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নগদ দশ হাজার টাকা বরাদ্দ করেন । এ ঘটনায় ওইদিন (বুধবার) রাতে নির্যাতিতা গৃহবধূর মা জাহানারা বেগম বাদি হয়ে বাদল মৃধা ও তার ছোটভাই লালমিয়া মৃধাকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন এবং রাতেই পাষন্ড স্বামী বাদল মৃধাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ