বরিশালে কৌশলে এগুচ্ছে বিএনপি

67

কল্যাণ কুমার চন্দ,বরিশাল ॥ তৃণমূল থেকে দলকে পুর্ণগঠন প্রক্রিয়ায় বরিশালের বিভিন্ন উপজেলার ঘোষিত কমিটি নিয়ে নেতাকর্মীদের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ থাকলেও কৌশলে মহানগরীতে দলকে পুর্ণগঠন প্রক্রিয়া শুরু করেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও বরিশাল মহানগর বিএনপির সভাপতি এ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার।
গত সপ্তাহের শুরুতে ব্যাপক প্রচারনা ও সভা-সমাবেশের মধ্যদিয়ে নগরীতে এ কার্যক্রম শুরু করা হয়। তিনি (সরোয়ার) নগরীর একাধিক ওয়ার্ডসহ সদর উপজেলার তিনটি ইউনিয়নে ১৩টি সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি গঠন কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন। সরোয়ারের ঘোষিত ১৩টি কমিটিকে অকপটে মেনে নিয়েছেন তৃনমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।
দলীয় সূত্রে জানা গেছে, দলকে সংগঠিত করার লক্ষ্যে ইতোমধ্যে এ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার নিজঅর্থে কারাগারে থাকা অসংখ্য নেতাকর্মীকে জামিনে মুক্ত করেছেন। পরবর্তীতে তিনি নেতাকর্মীদের অংশগ্রহণে নগরীর ১, ২, ৩, ১৯ ও ২২ নাম্বার ওয়ার্ড, সদর উপজেলার চরমোনাই এবং চাঁদপুরা ইউনিয়নে বিএনপির পৃথক সম্মেলন করে কমিটি ঘোষণা করেছেন। বাকি ওয়ার্ড ও ইউনিয়নের সম্মেলনের প্রস্তুতি চলছে। সূত্রে আরও জানা গেছে, গত ২৩ অক্টোবর দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি এবায়দুল হক চাঁন ও সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম শাহিন বাকেরগঞ্জ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করেন। আবুল হোসেন খানকে আহবায়ক ও সিকদার খলিলুর রহমানকে সদস্য সচিব করে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট ঘোষিত উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। তবে ঘোষিত ওই কমিটি থেকে বাদ পড়া বিএনপি নেতা মোয়াজ্জেম হোসেন নান্নু চৌধুরী, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হারুন-অর রশিদ জমাদ্দার, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মালেক মাষ্টার নবগঠিত কমিটিকে প্রত্যাখান করেছেন।
একইভাবে গত ২১ অক্টোবর উত্তর জেলা বিএনপির সভাপতি মেজবাহ উদ্দিন ফরহাদ ও সাধারন সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমান গৌরনদী উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করেন। আলহাজ্ব আবুল হোসেন মিয়াকে আহবায়ক ও মাষ্টার গোলাম হোসেনকে যুগ্ন আহবায়ক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। তৃনমূল নেতা-কর্মীদের তোপের মূখে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দরা ওই কমিটিকে স্থগিত করেছেন। মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির কমিটি ঘোষণার আগেই সেখানে বিরোধ দেখা দিয়েছে। সম্মেলন ছাড়া কমিটি ঘোষণা করা হলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দিয়ে গত ৩১ অক্টোবর বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন সেখানকার বিএনপির নেতাকর্মীরা। এ্যাডভোকেট মজিবর রহমন সরোয়ার বলেন, নিজের স্বার্থ পরিহার করে দলের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের প্রাধান্য দিয়ে কমিটি গঠন করা হলেই কোন বির্তক থাকবেনা।