বরিশালের অধিকাংশ ভোট কেন্দ্র ঝুঁকিপুর্ণ

75

কল্যাণ কুমার চন্দ,বরিশাল থেকে ॥ বরিশালের ছয়টি পৌরসভার নির্বাচনে অধিকাংশ ভোট কেন্দ্রগুলো বিভিন্ন সমস্যায় জর্জরিত। এক ডজন ভোট কেন্দ্রে নেই বিদ্যুৎ সংযোগ। কোনো কোনো কেন্দ্রে নেই সীমানা প্রাচীর। এ অবস্থায় নির্বাচনের দিন জরাজীর্ণ কেন্দ্রগুলোতে নিরাপত্তার ঝুঁকির আশংকা করছেন আওয়ামীলীগ ও বিএনপির মনোনীত মেয়র প্রার্থী ও তাদের সমর্থকেরা।
নবগঠিত উজিরপুর পৌরসভার নির্বাচনে ভোট কেন্দ্র রয়েছে ৯টি। এরমধ্যে মাহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,হানুয়া পৌর বসির উদ্দিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও রসুলাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বিদ্যুৎ নেই। চারটি কেন্দ্রে নেই সীমানা প্রাচীর। রসুলাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র টিনশেড ও দরজা-জানালা নেই। এমন জরাজীর্ণ কেন্দ্র হওয়ায় নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সেখানকার বিএনপি ও আওয়ামীলীগ দলীয় মেয়র প্রার্থী ও তার সমর্থক ভোটাররা। এ ছারা ৭নং ওয়ার্ডের হানুয়া পৌর ভোট কেন্দ্রটি নতুন হলেও ওই ওয়ার্ডের কমিশনার প্রার্থী ও ওয়ার্ড যুবলীগের যুগ্ন সম্পাদক মোঃ স্বপন হাওলাদার নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কিনা, তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় প্রকাশ করেছেন। উল্লেখ্য যে ৭নং ওয়ার্ডে কমিশনার প্রার্থী হিসাবে মাত্র ২ জন প্রার্থী প্রতিদন্দিতা করছেন। উজিরপুর উপজেলা সহকারী রিটার্নিং অফিসার জসিম উদ্দিন অবশ্য বলেছেন, যেসব কেন্দ্রে বিদ্যুৎ নেই, জরাজীর্ণ সেগুলো উপযোগী করা হবে। বাউন্ডারি না থাকলে ৪’শ গজের সীমানার মধ্যে লাল পতাকা উড়িয়ে ভোট নেয়া হবে।
বানারীপাড়া পৌর নির্বাচনের ৯টি কেন্দ্রের মধ্যে দুটি কেন্দ্রে বিদ্যুৎ সংযোগ নেই। এগুলো হচ্ছে ৭নং ওয়ার্ডের বাঁশতলা এলাকার আবদুর রউফের বাড়ির পূর্ব পাশে টাওয়ারের নিচে। অনেকটা ডোবা স্থানটি ইতোমধ্যে বালু ফেলে ভরাট করা হচ্ছে। ৮নং ওয়ার্ড রায়েরহাট কালীমন্দিরের সামনের ভোট কেন্দ্রে নেই আবাসন ব্যবস্থা। এছাড়া ওই পৌরসভার তিনটি কেন্দ্রে সীমানা প্রাচীরও নেই। কুন্দিহার নামে একটি কেন্দ্রের অবস্থাও জরাজীর্ণ। গোয়েন্দা পুলিশের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা জানান, এ বিষয়ে রিটার্নিং অফিসারের সাথে কথা বলা হয়েছে।
মুলাদী পৌর নির্বাচনে ৯টি কেন্দ্রের মধ্যে তিনটি কেন্দ্রে বিদ্যুৎ নেই। এগুলো হচ্ছে মহিষগুদি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দক্ষিণ চরডিগ্রি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও চরডিগ্রি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এছাড়া সাতটিতে নেই বাউন্ডারি দেয়াল।
গৌরনদীর ১৩টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে আশোকাঠী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বিদ্যুৎ সংযোগ নেই। পুলিশের তথ্যমতে, জরাজীর্ণ হওয়ায় এখানে ভোট নেয়া অনেকাংশেই উপযোগী নয়। মৎস্য উৎপাদন খামার কেন্দ্রটিও জরাজীর্ণ। এছাড়া তিনটি কেন্দ্রে নেই সীমানা প্রাচীর।
মেহেন্দিগঞ্জ পৌর নির্বাচনে ৯টি কেন্দ্রের মধ্যে তিনটিতে বিদ্যুৎ সংযোগ নেই। এগুলো হচ্ছে কালিকাপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়, বদরপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন শেল্টার ও দুর্গাপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন শেল্টার। এছাড়া বাউন্ডারী দেয়াল নেই ছয়টি কেন্দ্রে।
এ ব্যাপাওে বরিশাল জেলা নির্বাচন অফিসার মো. আবদুল হালিম খান বলেন, যেখানে কোন প্রতিষ্ঠান নেই সেখানকার খোলা জায়গায় তাঁবু টানিয়ে ভোট কেন্দ্র করা হবে। এছাড়া বিদ্যুৎ একেবারে না দেয়া সম্ভব হলে বিকল্প ব্যবস্থা করা হবে। ঝুঁকির আশংকা উড়িয়ে দিয়ে তিনি (জেলা নির্বাচন অফিসার) আরও বলেন, সব কেন্দ্রগুলোতেই আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের কঠোর নিরাপত্তা থাকবে।