বঙ্গবন্ধু হত্যা, অবৈধ ক্ষমতা দখল ও সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে কর্নেল তাহেরই প্রথম চ্যালেঞ্জ করেন-ইনু

65

যুগবার্তা ডেস্কঃ জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি বলেছেন, বঙ্গবন্ধু হত্যা, অবৈধ ক্ষমতা দখল ও সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে কর্নেল তাহেরই প্রথম চ্যালেঞ্জ করেন। জিয়া তার পাকিস্তানপন্থী রাজনীতির পথ পরিস্কার করতেই ঠান্ডা মাথায় কর্নেল তাহেরকে হত্যা করে। কর্নেল তাহের হত্যাকা- একটি রাজনৈতিক হত্যাকা-। তিনি বলেন, জিয়া আর কর্নেল তাহের এর মধ্যে রাজনৈতিক বিরোধ ছিল। জিয়া বাংলাদেশকে পাকিস্তানি ধারায় ঠেলে দিতে চেয়েছিল। তাহের বাংলাদেশকে পাকিস্তানি ধারায় ঠেলে দেয়ার বিপরীতে বাংলাদেশকে মুক্তিযুদ্ধের ধারায় পরিচালিত করার জন্য ৭৫ এর ৭ নভেম্বর সিপাহী জনতার অভ্যূত্থান সংগঠিত করেছিলেন। জনাব ইনু বলেন, জিয়া ও তাহেরের যে রাজনৈতিক বিরোধ ছিল সেই বিরোধ এখনো অবসান হয়নি। বেগম জিয়া ও বিএনপি জিয়ার পাকিস্তানপন্থী রাজনীতি বহন করছে। আর আমরা জাসদ, ১৪ দল তাহেরের মুক্তিযুদ্ধের রাজনীতি বহন করছি। জনাব ইনু বলেন, পাকিস্তানপন্থী রাজনীতির চির অবসান করতে হবে। রাজনীতির মাঠ থেকে রাজাকারদের বিদায় করতে হবে। রাজাকাররা বাংলাদেশে আর কোন দিনই ক্ষমতায় আসবে নাই। রাজাকার মুক্তিযোদ্ধার মিউজিক্যাল চেয়ার খেলা আর হবে না। সরকারেও মুক্তিযোদ্ধা থাকবে, বিরোধী দলেও মুক্তিযোদ্ধা থাকবে। জনাব ইনু কর্নেল তাহেরের চেতনায় মুক্তিযুদ্ধের পথে, সমাজতন্ত্রের পথে, লড়াই এগিয়ে নেয়ার জন্য জাসদের নেতা-কর্মীদের আহ্বান জানান।
জনাব হাসানুল হক ইনু এমপি শুক্রবার বিকালে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে জাসদ আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির ভাষণে এ কথা বলেন। হাসানুল হক ইনু এমপির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি এবং বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন এমপি, বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের আহ্বায়ক ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম, গণ আজাদী লীগের সভাপতি এড. এস কে সিকদার, ন্যাপ এর সহ-সম্পাদক ইসমাইল হোসেন, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ রেজাউর রশিদ। দলীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দলের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি, কার্যকরী সভাপতি এড. রবিউল আলম, শহীদ কর্নেল তাহের এর অনুজ ও জাসদ স্থায়ী কমিটির সদস্য প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন, সিপাহী জনতার অভ্যূত্থানে শহীদ কর্নেল তাহের এর সহযোগী ফ্লাইট সার্জেন্ট রফিকুল হক বীর প্রতীক, জাসদ স্থায়ী কমিটির সদস্য এড. হাবিবুর রহমান শওকত, নাদের চৌধুরী, সহ-সভাপতি আফরোজা হক রীনা, ফজলুর রহমান বাবুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন খান জকি, ওবায়দুর রহমান চুন্নু, নইমুল আহসান জুয়েল, ঢাকা মহানগর উত্তর জাসদের সভাপতি শফি উদ্দিন মোল্লা, ঢাকা মহানগর পূর্ব জাসদের সভাপতি শহীদুল ইসলাম, ঢাকা মহানগর পশ্চিম জাসদের সাধারণ সম্পাদক মোঃ নুরুন্নবী, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ জাসদের সাধারণ সম্পাদক মহিবুর রহমান মিহির, জাতীয় যুব জোটের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল কবির স্বপন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি মুহাম্মদ সামছুল ইসলাম সুমন প্রমুখ।
এছাড়াও দিবসের অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে ছিল ভোর ৬ টায় জাসদ কার্যালয়ে দলীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ ও কালো পতাকা উত্তোলন এবং সকাল ১০:৩০ টায় কর্নেল তাহেরের প্রতিকৃতিতে মাল্যদান। জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি, সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি, গণতন্ত্রী পার্টির মহানগর কমিটির সভাপতি আব্দুল মালেক, জাসদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এড. হাবিবুর রহমান শওকত, নাদের চৌধুরী, নুরুল আখতার, জাতীয় শ্রমিক জোট-বাংলাদেশ এর সাধারণ সম্পাদক নইমুল আহসান জুয়েল, জাতীয় যুব জোটের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল কবির স্বপন ও সহ-সভাপতি জাহিদুল আলম, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি মুহাম্মদ সামছুল ইসলাম সুমন ও সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবীবসহ জাসদ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ শহীদ কর্নেল আবু তাহের বীরউত্তম এর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
নেত্রকোনায় তাহের সমাধীতে জাসদের শ্রদ্ধা নিবেদন:
শহীদ কর্নেল আবু তাহের বীরউত্তম এর ৪১তম বার্ষিকীতে শুক্রবার সকাল ১১ টায় নেত্রকোনার পূর্বধলায় তার সমাধীতে জাসদ কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটির পক্ষ থেকে পুস্পমাল্য অর্পন করে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি ও শহীদ কর্নেল তাহের এরর সহধর্মীনী মিসেস লুৎফা তাহের এমপি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এড. সাদিক হোসেন, সংখ্যালঘু বিষয়ক সম্পাদক নির্মল দাস, সহ-সম্পাদক সৈয়দ শফিকুল ইসলাম মিন্টু, সদস্য নজরুল ইসলাম চুন্নু, রতন সরকারসহ ময়মনসিংহ জেলা ও মহানগর, নেত্রকোনা, কিশোরগঞ্জ, জামালপুর, শেরপুর জেলাসহ ময়মনসিংহ বিভাগের জেলা-উপজেলা জাসদের নেতৃবৃন্দ।