বঙ্গবন্ধুর মত অবিসংবাদিত নেতার নাম মুছে ফেলা যায়না খুনীচক্র সেটা জানতনা–পরিকল্পনামন্ত্রী

যুগবার্তা ডেস্কঃ বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা সংগ্রামের অবিসংবাদিত নেতা এবং বাঙালি জাতির মুক্তির জন্য তিনি সারাজীবন সংগ্রাম করেছেন। আমাদের দুর্ভাগ্য আমরা জাতির পিতাকে রক্ষা করতে পারেনি। বেদনাবিধুর ও কলঙ্কের কালিমায় কলুষিত বিভীষিকাময় ইতিহাসের এক ভয়ঙ্কর দিন হচ্ছে ১৫ আগস্ট। এটি সেই ভয়াল-বীভৎস দিন, অন্তিম শোকার্ত বাণীপাঠের দিন, জাতীয় শোক দিবস। ১৯৭৫-এর ১৫ আগস্ট নির্মম বুলেটের আঘাতে ঘৃণ্য খুনিরা নৃশংসভাবে হত্যা করে বাঙালি জাতির জনক, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ সন্তান, বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। রাজনীতির সঙ্গে সামান্যতম সম্পৃক্তদ্ধতা না থাকা সত্ত্বেও নারী-শিশুরাও সেদিন রেহাই পায়নি ঘৃণ্য কাপুরুষ এই ঘাতকচক্রের হাত থেকে। সেদিন বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে আরও প্রাণ হারান তার সহধর্মিণী, তিন ছেলেসহ পরিবারের ১৮ জন সদস্য। বিদেশে থাকায় প্রাণে বেঁচে যান কেবল বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। না-ফেরার দেশ থেকে অবিসংবাদিত এই নেতা ফিরে না এলেও বছর ঘুরে বার বার আসে রক্তঝরা ১৫ আগস্ট। ৪৩ বছর আগে ৩১ শ্রাবণের অভিশপ্ত দিনে বিশ্বাসঘাতকরা যাকে বিনাশ করতে চেয়েছিল সেই শেখ মুজিব মরেননি। বাঙালির হৃদয়ে অবিনাশী হয়ে আছেন। আমরা যদি নিজ নিজ দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করি তাহলে তাঁর প্রতি সম্মান জানানো হবে এবং তাঁর স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়ন করা যাবে। বাঙ্গালী জাতি শ্রদ্ধাবনত চিত্তে সারাজীবন স্মরণ করে যাবে তার শ্রেষ্ঠ সন্তান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। বাংলাদেশের জন্ম থেকেই এ খুনী চক্র বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে ফেলার চক্রান্ত শুরু করেছিল। বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে ফেলতে তারা বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করে, বাঙ্গালী জাতির ইতিহাস বিকৃত করে। বিচার বিরোধী আইনপাশ, সংবিধান সংশোধন কি না করেছে তারা। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর মত নেতার নাম মুছে ফেলা যায়না এই খুনীচক্র সেটা জানতনা। বঙ্গবন্ধু আছে প্রতিটি বাঙ্গালীর হৃদয়ে, ছিল এবং থাকবে চিরকাল। বৃহস্পতিবার বিকেলে পরিকল্পনা মন্ত্রনালয় কতৃক আয়োজিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসের মাসব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মাননীয় পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এসব কথা বলেন।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ জিয়াউল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে বিশেষ অতিথি ছিলেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সিনিয়র সচিব ড: শামসুল আলম; কৃষি, পানি সম্পদ ও পল্লী প্রতিষ্ঠানের সদস্য এ এম শামসুদ্দিন আজাদ চৌধুরী, পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব সৌরেন্দ্র নাথ চক্রবর্ত্তী এবং শিল্প ও শক্তি বিভাগের সদস্য বেগম শামীমা নার্গিসসহ প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ চর্চার উপর গুরুত্বারোপ করেন এবং বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। অনুষ্ঠানে পরিকল্পনা মন্ত্রনালয়ের সকল স্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।