ফেসবুক নিয়ে বিব্রত বিপাশা হায়াত

যুগবার্তা ডেস্কঃ প্রযুক্তি কিংবা ইন্টারনেট মানুষের জীবনে অনেক অনক সময়, অনেক ক্ষেত্রে ঝামেলাও দিয়েছে। কাজকে সহজ করে দিয়েছে। সৃষ্টি করেছে বিড়ম্বনা। তার কারনে সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন হতে হয় কখনও কখনও।
বিষয়টি অবশ্য সবার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়। প্রযুক্তির সহজলভ্যতাকে আমাদের দেশের অনেকেই সঠিকভাবে ব্যবহার না করে অপব্যবহার করতেই পছন্দ করেন। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক।
এই মাধ্যম ব্যবহার করে অনেককে বিব্রত করা হচ্ছে। তার মধ্যে বেশি বিব্রত হচ্ছেন তারকারা।
সম্প্রতি ফেসবুকের অপব্যবহারের শিকার হয়েছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী বিপাশা হায়াত। তার বিভিন্ন সময়ের বিভিন্ন ধরনের ছবি এবং ব্যক্তি জীবনের নানা তথ্য ব্যবহার করে ফেসবুকে তার নামে প্রায় দশটিরও বেশি ভুয়া অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে।
যার একটিরও সঙ্গে কোনো ধরনের সম্পৃক্ততা নেই বলে জানিয়েছেন বিপাশা হায়াত। তার নামে খোলা সেসব আইডিতে প্রতিদিনই কোনো না কোনো ছবি আপলোড করা হচ্ছে।
আবার বিভিন্ন ধরনের রাজনৈতিক, ধর্মীয় এবং ব্যক্তিগত স্ট্যাটাসও দেয়া হচ্ছে। সেসব স্ট্যাটাসে অনেক মন্তব্যও রয়েছে যা বিভ্রান্তিকর ও অত্যন্ত লজ্জাজনক।
শুধু তাই নয় সেসব অ্যাকাউন্ট থেকে নিয়মিত চ্যাটও করা হচ্ছে। এসব ফেসবুক ভুয়া অ্যাকাউন্টে যে বিপাশা হায়াতকে উপস্থাপন করা হচ্ছে তাতে এই শিল্পীর ব্যক্তি ইমেজকে ক্ষুণ্ণ করা হচ্ছে। আর এ নিয়েই বিব্রতকর পরিস্থিতির মধ্যে আছেন বিপাশা হায়াত।
তিনি বলেন, ‘আমার নামে যেসব ভুয়া অ্যাকাউন্ট আছে সেগুলোতে আমাকে যেভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে তাতে সত্যিই বিব্রত আমি। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ফেসবুক নিয়ে প্রশ্নের সম্মুখীন হই। ফেসবুকে আমার একটি মাত্রই অ্যাকাউন্ট আছে যার সঙ্গে শুধু আমার পরিচিতজনরাই সম্পৃক্ত আছেন।’
এসব ভুয়া ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রতি অনুরোধও জানিয়েছেন তিনি।
এ প্রসঙ্গে ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ফেসবুকে তারকাদের পরিচয় দিয়ে ভুয়া অ্যাকাউন্ট করার ঘটনা নতুন নয়। কেউ যদি বিটিআরসির মাধ্যমে অভিযোগ করেন তাহলে আমরা ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দিয়ে তা বন্ধ করার চেষ্টা করি। এর আগেও আমরা এভাবে বন্ধ করেছি। কিন্তু তার কিছুদিন পর আবার একই ঘটনা দেখা যায়। তবে সবচেয়ে ভালো হয় যদি কারও নিজস্ব অ্যাকাউন্ট থাকে তাহলে তা ফেসবুক থেকে ভেরিফাইড করে নেয়া।’
প্রসঙ্গত, শুধু বিপাশা হায়াতই নন, মিডিয়ার আরও অনেকেই এ ধরনের প্রতারণামূলক অ্যাকাউন্টের শিকার। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের এই বিষয়গুলোতে কড়া নজরদারি রাখার বিনীত আহ্বান জানিয়েছেন শিল্পীরা।