প্রকাশ্যে প্রবাসীর স্ত্রীকে জুতাপেটা করেছে যুবলীগ নেতা

বরিশাল অফিসঃ
কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় প্রকাশ্য দিবালোকে এক প্রবাসীর স্ত্রীকে জুতাপেটা করেছে প্রভাবশালী যুবলীগ নেতা। হামলার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ায় সর্বত্র ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে। বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য ওই গৃহবধূর বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে থানায় মামলা দায়ের করা হয়। ঘটনাটি ঘটেছে জেলার গৌরনদী পৌর এলাকার টরকী বন্দরে।
টরকী বন্দরের বাসিন্দা সৌদিপ্রবাসী হালিম সরদারের স্ত্রী মরিয়ম বেগম (৩০) এজাহারে উল্লেখ করেন, মোবাইল রির্জাচের দোকান থেকে স্থানীয় প্রভাবশালী যুবলীগ নেতা মাহাবুব আলম কুট্টি তার ছোট বোন পপি আক্তারের (১৮) মোবাইল নাম্বার সংগ্রহ করে প্রেমের প্রস্তাবে তাকে বিভিন্ন ধরনের কু-প্রস্তাব দেয়। এতে সে (পপি) রাজি না হওয়ায় তাকে (মরিয়মকে) ফোন দিয়ে ওই যুবলীগ নেতা পপিকে তার প্রস্তাবে রাজি করার জন্য বিভিন্ন ধরনের চাঁপ প্রয়োগসহ মারধরের হুমকি প্রদর্শন করে। মরিয়ম বেগম এজাহারে আরও উলেøখ করেন, গত ১৫ অক্টোবর বিকেলে বাজারের উদ্দেশ্যে তিনি টরকী বন্দরে যাওয়ার সময় স্থানীয় হাইস্কুলের সামনে পৌঁছলে যুবলীগ নেতা মাহাবুব আলম কুট্টিসহ তার ২/৩জন সহযোগীরা পথরোধ করে। একপর্যায়ে তারা তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করলে তিনি তাদের প্রতিবাদ করেন। এতে যুবলীগ নেতা ও তার সহযোগীরা ক্ষিপ্ত হয়ে প্রকাশ্যে জনসম্মুখে বসে তাকে (মরিয়ম) জুতাপেটাসহ মারধর করে গুরুতর আহত করে শ্লীলতাহানী ঘটিয়ে ব্যবহৃত স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নেয়। পরবর্তীতে স্থানীয়রা গুরুতর অবস্থায় মরিয়মকে উদ্ধার করে গৌরনদী হাসপাতালে ভর্তি করেন। হাসপাতালের চিকিৎসায় কিছুটা সুস্থ্য হয়ে গৃহবধূ মরিয়ম বেগম বাদি হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন (যার নং-১২)।
সূত্রমতে, যুবলীগ নেতার হামলার ছবি বুধবার সকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ায় প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা থেকে শুরু করে সর্বত্র ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা মাহাবুব আলম কুট্টি বলেন, মরিয়ম বেগম আমার বিরুদ্ধে এলাকায় মিথ্যে অপপ্রচার চালানোর বিষয়টি আমি তাকে জিজ্ঞাসা করলে সে আমার ওপর চড়াও হয়। গৌরনদী মডেল থানার ওসি আলাউদ্দিন মিলন মামলা দায়েরের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আসামিদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশের অভিযান চলছে।