পল্টনের শহীদদের সংগ্রামের পথ ধরে কমিউনিস্ট পার্টি লড়াই চালিয়ে যাবে

যুগবার্তা ডেস্কঃ বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেছেন, কমিউনিস্ট পার্টির অগ্রযাত্রা থামাতেই পল্টনে মহাসমাবেশে বোমা হামলা চালিয়ে নির্মমভাবে ৫ জন কমরেডকে হত্যা করা হয়েছিল। পল্টন হত্যাকান্ডে যাঁরা শহীদ হয়েছেন, তাঁরা প্রত্যেকেই শোষণমুক্ত-শ্রেণিহীন সমাজ প্রতিষ্ঠার লড়াইয়ে বিশিষ্ট ভ‚মিকা পালন করেছেন। তাঁরা স্বপ্ন দেখতেন সমাজতান্ত্রিক-সাম্যবাদী সমাজের। বার বার কমিউনিস্ট পার্টির ওপর হামলা হয়েছে। পল্টন বোমা-হামলা কমরেড হিমাংশু মন্ডলের জীবন কেড়ে নিলেও, তাঁর হাত থেকে লাল পতাকা ছিনিয়ে নিতে পারেনি। হত্যা-নির্যাতন করে আদর্শের লড়াই থেকে কমিউনিস্টদের কখনই বিচ্যুত করা যাবে না।
শুক্রবার সকালে পুরানা পল্টনে মুক্তিভবনের সামনে পল্টন হত্যাকান্ডের শহীদদের স্মরণে নির্মিত অস্থায়ী শহীদ বেদীতে পুষ্পস্তাবক অর্পণের পর অনুষ্ঠিত সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম একথা বলেন। এছাড়া সাধারণ সম্পাদক কমরেড সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ বক্তব্য রাখেন। এরপূর্বে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটি শহীদ বেদীতে পুষ্পস্তাবক অর্পণ করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য কমরেড হায়দার আকবর খান রনো, সাজ্জাদ জহির চন্দনসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। এরপর পলিটব্যুরো সদস্য কমরেড আনিসুর রহমান মল্লিক-এর নেতৃত্বে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি-এর নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান ও সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী-এর নেতৃত্বে জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি, সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান ও কেন্দ্রীয় নেতা বজলুর রশিদ ফিরোজ-এর নেতৃত্বে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল, তেল-গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক প্রকৌশলী শেখ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু-এর নেতৃত্বে গণফোরাম, সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাইফুল হক-এর নেতৃত্বে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এ এস এ সবুর-এর নেতৃত্বে ঐক্য ন্যাপ, শফিক আহমেদ খান-এর নেতৃত্বে ন্যাপ, আব্দুল গফুর-এর নেতৃত্বে গণতন্ত্রী পার্টি, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য কমরেড অধ্যাপক আব্দুস সাত্তারের নেতৃত্বে ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগ, অ্যাড. হাবিবুর রহমান শওকত-এর নেতৃত্বে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ, কেন্দ্রীয় নেতা মানস নন্দী-এর নেতৃত্বে বাসদ (মার্কসবাদী), পলিটব্যুরো সদস্য লুৎফুর রহমান-এর নেতৃত্বে সাম্যবাদী দল (এম এল), কেন্দ্রীয় রাজনৈতিক পরিষদের সদস্য আবুল হাসান রুবেল-এর নেতৃত্বে গণসংহতি আন্দোলন, কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক নাসিরুদ্দিন আহমেদ নাসু-এর নেতৃত্বে গণমুক্তি ইউনিয়ন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মহসীন-এর নেতৃত্বে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ, শহীদুল্লাহ কায়সার-এর নেতৃত্বে নাগরিক ঐক্যসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী ও শ্রেণি সংগঠন শহীদদের স্মরণে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে।