নিহত ১ আহত ২৫,১ কোটি টাকা লুটঃ উজিরপুরের হারতায় দুর্ধর্ষ ডাকাতি

কল্যাণ কুমার চন্দ,বরিশাল থেকে.
উজিরপুরের হারতা বাজারের উত্তরপাড়ে মাছের আরতে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দুর্ধর্ষ ডাকাতি সংগঠিত হয়েছে। ডাকাতরা অতর্কিত ভাবে গুলি ও বোমা ফাঠিয়ে ১ কোটি টাকারও বেশি লুট করে নিয়ে গেছে। ডাকাতদের গুলি ও বোমা হামলায় সোহরাব বেপারী(৬৫) নামক একজন আরতদার নিহত হয়েছেন এবং কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছে বলে সংবাদ পাওয়া গেছে। আহতদের মধ্যে লালু বিশ্বাস,সমির রায়,সুশান্ত বিশ্বাস,সোমেন হালদার ও শুশিলেরর অবস্থা আশংকাজনক। আহতদেরকে বিভিন্ন হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।
ডাকাতদের হামলায় আহত,প্রত্যক্ষদর্শি ও পুলিশ সুত্রে জানাগেছে ১০/১২ জনের মুখোশধারি সংঘবদ্ধ সশস্র একটি ডাকাত দল সন্ধ্যা সারে ৫টায় হারতা বাজারের মাছের আড়ত সংলগ্ন নদীর ঘাটে (কঁচা নদীর ঘাটে) একটি স্পীড বোর্ডে এসে মাছের বাজারে ঢুকে অতর্কিত ভাবে গুলি ও বোমা ফাটাতে ফাটাতে প্রায় ২৫টি মাছের আরৎ থেকে কমপক্ষে ১ কোটিরও বেশি টাকা লুট করে নিয়ে গেছে। এ সময় ডাকাতদের বোমার আঘাতে আড়ৎদার সোহরাব বেপারী নিহত হন, সে ওটরা গ্রামের কাসেম বেপারীর পূত্র । এছারা গুলি,বোমার আঘাতে এবং ছুরিকাঘাতে আরৎদার,পাইকার ও খুচরা ক্রেতা বিক্রেতা সহ কমপক্ষ ২৫ জনের বেশি গুরুতর আহত হয়েছেন। ৪০ মিনিটের বেশি সময় ধরে ডাকাতি চলমান সময় পুরো বাজার এলাকায় এক আতংকময় পরিস্থিতি বিরাজ করতে থাকলে ব্যাবসায়ী সহ অন্যান্য লোকজন ভয়ে নিথর হয়ে পরেন। ডাকাতরা ডাকাতি শেষে স্পীডবোর্ডে করে উজিরপুরের সন্ধ্যা নদী দিয়ে পালিয়ে গেছে বলে একাধিক সুত্রে জানােেগছে। এ ব্যাপারে উজিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্য (তদন্ত) মোঃ ইকবাল হোসেন জানিয়েছেন ডাকাতির সংবাদ পেয়ে অতিরিক্ত ফোর্স নিয়ে তিনি রাত ৭টা ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন। তবে হারতা বাজারের একাধিক ব্যাবসয়ীরা জানিয়েছেন ৩শত গজ দুরে অবস্থিত হারতা পুলিশ ক্যাম্পের পুলিশের ভুমিকা ছিলো রহস্যজনক।