দৌলতপুরে খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে নৌকার প্রার্থীর সমর্থকদের ওপর বিএনপি প্রার্থীর সমর্থকদের হামলা : গুলিবিদ্ধসহ আহত-২

দৌলতপুর (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে নৌকার প্রার্থীর সমর্থকদের ওপর বিএনপি সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকরা হামলা চালিয়েছে। বিএনপি সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের গুলিতে সাগর (৩২) নামে নৌকা প্রার্থীর এক কর্মী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এসময় বিক্ষুব্ধ বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর কর্মীরা বাদশা নামে এক নৌকা প্রার্থীর কর্মীর মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগ করে তা পুড়িয়ে দেয়। এ ঘটনার পর এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে দৌলতপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। বুধবার রাত ৮টার দিকে দৌলতপুর উপজেলার হোগলবাড়িয়া ইউনিয়নের কল্যানপুর বটতলা এলাকায় সংঘর্ষ, গুলি ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে।
দৌলতপুর থানা পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, হোগলবাড়িয়া ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ দলীয় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সেলিম চৌধুরীর কর্মী ও সমর্থকদের কল্যানপুর বটতলা এলাকায় নির্বচনী গণসংযোগ চলছিল। এসময় একই ইউনিয়নের বিএনপি সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী বিল্লাল হোসেনের কর্মী ও সমর্থকরা মোটরসাইকেল বহর নিয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই স্লোগান দিয়ে নৌকার সমর্থকদের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে কয়েক রাউন্ড গুলিবর্ষণ করে। গুলিতে সাগর নামে নৌকা প্রতীকের এক কর্মী পায়ে গুলিবিদ্ধ হলে ভয়ে ও আতঙ্কে নৌকার সমর্থকরা একটি মোটরসাইকেল ফেলে পালিয়ে যায়। বিক্ষুব্ধ বিএনপি সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মী ও সমর্থকরা নৌকা প্রার্থীর কর্মী বাদশা’র মোটরসাইকেলটি অগ্নিসংযোগ করে তা পুড়িয়ে দেয়। এঘটনার পর এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এবং দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে নৌকা প্রার্থীর বিক্ষুব্ধ কর্মী ও সমর্থকরা কল্যানপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকায় বিএনপি সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মী মাসুদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুরের চেষ্টা চালায়। এমন তান্ডলীলার খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে উভয় প্রার্থীর কর্মী ও সমর্থকদের ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। গুলিবিদ্ধ সাগর দৌলতপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
অপরদিকে একইদিন সন্ধ্যায় সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার মরিচা ইউনিয়নের মাজদিয়াড় মোড় এলাকায় নৌকা প্রার্থী শাহ আলমগীরের সমর্থক টুয়েল (৩৭) কে প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী জেয়াদুর রহমান জজের সমর্থকরা ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে। আশংকাজনক অবস্থায় তাকে প্রথমে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে বলে নৌকা প্রতীকের আওয়ামী লীগ দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহ আলমগীর জানিয়েছেন।
অগিনসংযোগ, গুলি ও সংঘর্ষের ঘটনার বিষয়ে দৌলতপুর থানার ওসি (তদন্ত) শফিকুল ইসলাম শফিক বলেন, কল্যানপুর এলাকায় এমন ঘটনার খবর শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করা হয়েছে। তবে গুলি, মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগের বিষয়ে উভয়পক্ষের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ রয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে বলে তিনি জানান।