দুর্বল যোগাযোগের কারণে উত্তরে বাড়ছে না বিনিয়োগ

41

রাজশাহী অফিসঃ উত্তরাঞ্চলে বিনিয়োগ না বাড়ার প্রধান কারণ দুর্বল যোগাযোগ ব্যবস্থা। যোগাযোগের চার মাধ্যমের তিনটিই নেই উত্তরাঞ্চলে। শুধু সড়ক পথের যোগাযোগ দিয়ে উত্তরাঞ্চলে বিনিয়োগ বৃদ্ধি করা যাবে না। বিনিয়োগ বৃদ্ধি করতে হলে পণ্য আনা-নেওয়ার জন্য রেল, নৌ এবং আকাশপথের যোগাযোগও সৃষ্টি করতে হবে।

‘চ্যালেঞ্জ অ্যান্ড প্রসপেক্টস অব ইনভেস্টমেন্ট ইন দ্য নর্দান রিজিয়ন অব বাংলাদেশ’ শীর্ষ এক সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন। শনিবার বিকেলে রাজশাহী মহানগরীর একটি কমিউনিটি সেন্টারে এর আয়োজন করে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়।

সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী আমিনুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য দেন সংস্থাটির পরিচালক তৌহিদুর রহমান খান। আর মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. আবদুল ওয়াদুদ।

প্যানেল আলোচক হিসেবে নিজেদের মতামত তুলে ধরেন- বেসরকারি সংস্থা টিএমএসএস এর নির্বাহী পরিচালক ড. হোসনে আরা বেগম, বাংলাদেশ রেশম শিল্প মালিক সমিতির সভাপতি ও রাজশাহীর স্থানীয় দৈনিক সোনালী সংবাদের সম্পাদক লিয়াকত আলী, দৈনিক করতোয়ার সম্পাদক মোজাম্মেল হক, দৈনিক সোনার দেশের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আকবারুল হাসান মিল্লাত। এছাড়া উন্মুক্ত আলোচনায় রাজশাহীর বিভিন্ন স্তরের ব্যবসায়ী ও নারী উদ্যোক্তারা অংশ নেন।

তারা বলেন, রাজশাহীর সঙ্গে ৬৪ জেলার রেলযোগাযোগ যতদিন স্থাপন সম্ভব না হবে, ততদিন উত্তরাঞ্চলেই বিনিয়োগ বাধাগ্রস্ত হবে। তাছাড়া আব্দুলপুর-রাজশাহী ডুয়েল গেজ রেলপথ স্থাপন এবং বিভাগের সব জেলার সঙ্গে রেলযোগাযোগ স্থাপন করা না হলে বিনিয়োগ কোনোভাবেই বৃদ্ধি করা সম্ভব নয়। এছাড়া বিনিয়োগ বাড়াতে হলে প্রয়োজন কার্গো বিমান। উত্তরাঞ্চলের ব্যবসায়ীদের এসব দাবি দীর্ঘদিন ধরে উপেক্ষিত রয়েছে।

বক্তারা অভিযোগ করেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সুষম উন্নয়নের কথা চিন্তা করে উত্তরা গণভবন করেছিলেন। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন হয়নি। এখন উত্তরাঞ্চলের প্রতি বৈষম্য করা হচ্ছে। সরকারের সু-দৃষ্টি না ফিরলে উত্তরাঞ্চলে বিনিয়োগ বাড়বে না। এতে দিন দিন এ অঞ্চলে বেকার মানুষের সংখ্যা বাড়বে। এর প্রভাব পড়বে দেশের অর্থনীতিতে।

সেমিনারে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী আমিনুল বলেন, সেমিনারের সব বক্তার বক্তব্যই তিনি লিখে নিয়েছেন। সময়মতো তা সরকারের নীতি নির্ধারক মহলের কাছে তিনি পৌঁছে দেবেন। উত্তরাঞ্চলে বিনিয়োগ বৃদ্ধির লক্ষ্য নিয়েই এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। এখানে বিনিয়োগ বাড়াতে তিনি কিছু পরিকল্পনা গ্রহণ করবেন।

বিভাগীয় কমিশনার নূর-উর-রহমানের সভাপতিত্বে সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন- পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি মাসুদুর রহমান ভুঁইয়া, জেলা প্রশাসক হেলাল মাহমুদ শরীফ, রাজশাহীর কর কমিশনার দবির উদ্দিন, কাস্টমস কমিশনার মোয়াজ্জেম হোসেন, রাজশাহী মহানগর পুলিশের কমিশনার শফিকুল ইসলাম, রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মনিরুজ্জামান মনি ও সমাজসেবী শাহীন আক্তার রেণী।