দুর্নাম হচ্ছে গোবিন্দগঞ্জ বাসীর!

পল্লব সরকারঃ গোবিন্দগঞ্জের সাহেবগঞ্জ-বাগদা ইক্ষু ফার্ম নিয়ে সাম্প্রতিক যে ঘটনা ঘটেছে সে ঘটনার অনেক সত্যকেই গোপন করা হচ্ছে! উচ্ছেদ অভিযান ও তার পরবর্তী ঘটনাগুলো কে যে ভাবে অনলাইন নিউজ পোর্টাল, প্রিন্ট মিডিয়া, টিভি চ্যানেল, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, বিশেষ করে আদিবাসী সংগঠন গুলো পরিচালিত ফেসবুক পেইজসহ সোস্যাল নেটওয়ার্কে প্রপাগন্ডা ছড়িয়ে, গোবিন্দগঞ্জ বাসীকে যেভাবে সাম্প্রদায়িক হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছে, তা গোবিন্দগঞ্জ বাসীর জন্য অপমান ও লজ্জার বিষয় বটে। তাই আসল ঘটনা ও থলের বিড়ালদের মুখোশ উন্মোচন করে গোবিন্দগঞ্জ বাসীর উচিত এই অপপ্রচারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে তীব্র প্রতিবাদ জানানো এবং সেই সংগে শান্তি প্রিয় সাঁওতাল আদিবাসীদের যারা এ আন্দোলনে উস্কানী দিয়ে সরকারের মুখোমুখি দ্বার করিয়ে দিয়েছে, সে যেই হোক, বাম, ডান, আদিবাসী, স্থানীয় উস্কানীদাতাদের মুখোশ উন্মোচন করে এই অপপ্রচারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়া। যারাই এ অশান্তির কারন হোক না কেন, তাদের নাম সুকৌশলে স্থানীয় সাংবাদিক সমাজ এড়িয়ে যাচ্ছেন সে টিভি হোক কিংবা প্রিন্ট মিডিয়াই হোক। আর এই দুর্বলতার কারনেই আদিবাসীদের উস্কানীদাতারা প্রপাগন্ডা ছড়ানোর সুযোগ পাচ্ছেন। গোবিন্দগঞ্জ কে নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্রের ব্যাপারে স্থানীয় সচেতন মহলের উচিত এখনি এই ষড়যন্ত্রকারী ও প্রপাগন্ডা প্রচারকারীদের বিরুদ্ধে তীব্র সামাজিক, রাজনৈতিক আন্দোলন গড়ে তোলা।
লেখকঃ সরকার পল্লব, তরুন রাজনৈতিক কর্মী