দালালের খপ্পরে দুইমাস ধরে নিখোঁজ আলজেরিয়া প্রবাসী বরিশালের রাজিব

বরিশাল অফিস ॥ অভাবী পরিবারের সদস্যদের মুখে হাসি ফোঁটাতে মোটা অংকের টাকা বেতনের লোভে এক প্রতারক দালালের খপ্পরে পরে আলজেরিয়ায় গমন করেছিলেন রাজিব হাওলাদার (২৯)। পরিবারের সদস্যদের মুখে হাসির বদলে গত দুইমাস ধরে চলছে কান্নার রোল। আলজেরিয়ায় গমনের পর পরিবারের সদস্যদের সাথে নিয়মিত রাজিবের যোগাযোগ হলেও গত দুইমাস ধরে নিখোঁজ রয়েছেন রাজিব।
নিখোঁজ রাজিব জেলার গৌরনদী উপজেলার দিয়াশুর গ্রামের দিনমজুর আব্দুর রব হাওলাদারের পুত্র। রবিবার সকালে রাজিবের অসহায় পিতা, স্ত্রী লিমা বেগম ও চাচা জামাল হাওলাদার গৌরনদী প্রেসক্লাবে উপস্থিত হয়ে সাংবাদিকদের কাছে জানান, দৈনিক মজুরীর ভিত্তিতে রাজিব ঢাকায় সেনেটারী মিস্ত্রির কাজ করতো। কিন্তু স্বল্প আয়ে তার সংসার চলছিলোনা। এরইমধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাসিন্দা দারুল ইসলাম নামের এক প্রতারক দালালের খপ্পরে পরে রাজিব। ওই দালাল তাকে (রাজিব) সেনেটারী মিস্ত্রি হিসেবে মাসিক ৩০ হাজার টাকা বেতনের চাকুরী দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে আলজেরিয়া পাঠানোর প্রস্তাব দেয়। এ জন্য (বিদেশ পাঠানোর) তার কাছে তিন লাখ টাকা দাবী করে দালাল দারুল ইসলাম। দালালের খপ্পরে রাজিব ব্র্যাকের কাছ থেকে ঋণ ও নিকট আত্মীয় স্বজনদের কাছ থেকে ধারদেনা করে দালালের হাতে তিন লাখ টাকা তুলে দেয়। ২০১৬ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারী ঢাকার পুরানা পল্টনের নিসুটি এন্টারপ্রাইজ নামের একটি রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে রাজিবকে আলজেরিয়া পাঠানো হয়। ওই এজেন্সি থেকে একইসাথে ৪৫ জন শ্রমিককে আলজেরিয়া পাঠানো হয়।
রাজিবের স্ত্রী এক সন্তানের জননী লিমা বেগম জানান, বিদেশে পৌছেই বিপাকে পরে যায় রাজিবসহ সকল শ্রমিক। সেখানে কোম্পানির কাজ নেই, বেতনও নেই। এমনকি থাকা ও খাবারের ব্যবস্থাও নেই। এ কারণে একমাস পর নিজেদের প্রচেষ্টায় পরিবারের পাঠানো টাকায় টিকেট ক্রয় করে দেশে ফেরত আসে ৩৭ জন শ্রমিক। সমস্যার কথা জানিয়ে পরিবারের কাছে একাধিকবার মোবাইল করে এবং দেশে আসার জন্য টিকেটের টাকা পাঠানোর অনুরোধ জানিয়ে কান্নাকাটি করেছিলো রাজিব। কিন্তু হতদরিদ্র পরিবারের পক্ষে টাকা পাঠানো সম্ভব হয়নি।
সূত্রমতে, রাজিবকে দেশে ফেরত আনার জন্য তার বাবা ও চাচা দালাল দারুল ইসলাম ও রিক্রুটিং এজেন্সির কাছে অসংখ্যবার ধর্না দিয়েও ব্যর্থ হন। এরইমধ্যে গত দুইমাস যাবত রাজিবের সন্ধান মিলছেনা। তার মোবাইল ফোনও বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। বর্তমানে দালাল নানা তালবাহানা শুরু করছেন। নিখোঁজ রাজিবের অসহায় দরিদ্র পরিবার কোন উপায়অন্তুর না পেয়ে রাজিবের সন্ধানের আশায় বাংলাদেশ সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।