দাম বেড়েছে আলু ডিম ডাল চিনির

64

হঠাৎ করেই রাজধানীর বাজারে বেড়েছে ডিম, আলু ও চিনির দাম। প্রতি হালি ফার্মের লাল ডিম ২ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৩৪ টাকায়। অথচ একদিন আগেও বিক্রি হয়েছে ৩২ টাকায়। বেড়েছে আলুর দাম। এছাড়া বাড়তির দিকে চিনির দর। শুধু চিনি নয় পাশাপাশি বেড়েছে ছোলার দাম। কয়েকদিন আগে প্রতি কেজি ছোলা ৬৫ টাকা থেকে ৬৮ টাকায় বিক্রি হলেও শুক্রবার তা বিক্রি হচ্ছে ৭৫ থেকে ৮০ টাকায়।
শুক্রবার রাজধানীর কাওরান বাজার ও নিউমার্কেটসহ কয়েকটি বাজারে সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে বিভিন্ন নিত্যপণ্যের দামের এ চিত্র পাওয়া যায়।
এদিকে, শুক্রবার খুচরা বাজারে তুরস্ক ও কানাডা থেকে আমদানি করা বড় দানার প্রতি কেজি ডাল ১০০ টাকা থেকে ১১০ টাকা, মাঝারি দানা ১০৫ টাকা থেকে ১১৫ টাকা বিক্রি করতে দেখা গেছে। যা আগের সপ্তাহে ছিল বড় দানা ৯৫ টাকা থেকে ১০০ টাকায়, মাঝারি দানা ১০০ টাকা থেকে ১১০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি কেজি আমদানি করা ডালে বেড়েছে ৫ টাকা থেকে ১০ টাকা।
খুচরা ব্যবসায়িরা বলছেন, পাইকারী বাজার থেকে বেশি দামে ডাল কিনতে হচ্ছে বলে খুচরা বাজারে দাম বেড়েছে। তবে পাইকারী ব্যবসায়িরা ডাল বাড়ার প্রকৃত কারণ তুলে ধরতে পারেনি।
ডালের দাম বাড়ার কারণ জানতে চাইলে বাংলাদেশ ডাল ব্যবসায়িরা সমিতির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম দাম বাড়ার বিষয়ে কোনো ধরনের মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।
ডিমের দর বৃদ্ধি প্রসঙ্গে কাওরানবাজারের ডিম ব্যবসায়ী বেলায়েত হোসেন বলেন, বৃষ্টি ও গরমের কারণে বাজারে ডিমের সরবরাহ কমেছে। উত্পাদনকারিরা ডিম নষ্ট হওয়ার ভয়ে উত্পাদন কিছুটা কমিয়েছেন। এজন্য দাম বেড়েছে। তবে দেশি মুরগী ও হাঁসের ডিমের দাম বাড়েনি। প্রতি হালি মুরগি ও হাঁসের ডিম বিক্রি হচ্ছে ৪৫ টাকায়।
এদিকে কিছুটা বাড়তির দিকে চিনির দর। আজ বাজারে মানভেদে প্রতি কেজি চিনি বিক্রি হয় ৫০ থেকে ৫৪ টাকায়। যা আগের সপ্তাহে ছিল ৪৮ থেকে ৫২ টাকা। চিনির এই বাড়তি দর সরকারের বিপনন সংস্থা ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)’র হিসেবেও দেখানো হয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ব্যবসায়ী জানান, বর্তমানে চিনির দাম বাড়ার কোনো কারণ নেই। কিন্তু আর মাত্র দুই মাস পর রমজান শুরু হচ্ছে। তাই আগে থেকেই এক শ্রেণির ব্যবসায়ী দাম বাড়ানোর পায়তারা করছে।
বেড়েছে আলুর দরও। বাজারে আলুর কেজি বিক্রি হয় ১৬ থেকে ২০ টাকায়। যা গত সপ্তাহে ছিল ১৪ থেকে ১৭ টাকা। তবে অন্যান্য সবজির দাম গত সপ্তাহের তুলনায় মোটামুটি স্থিতিশীল রয়েছে। প্রতি কেজি বেগুন মানভেদে ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, পটল ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, ঢেঁড়স ৪৫ থেকে ৫০ টাকা, ঝিঙ্গা ৪৫ থেকে ৫০ টাকা, চিচিঙ্গা ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, বরবটি ৫৫ থেকে ৬০ টাকা, শিম ৪০ টাকা, টমেটো ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, করলা ৫০ থেকে ৬০ টাকা, কাঁচা মরিচ ৬০ টাকা থেকে ৮০ টাকায়।