ঢাকা থেকে জামালপুর সিপিবি-বাসদ-এর ‘রেল রক্ষা অভিযাত্রা’

67

যুগবার্তা ডেস্কঃ বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ-এর নেতৃবৃন্দ বলেছেন, আমাদের দেশের পরিবহন ব্যবস্থা এখন সিন্ডিকেট দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হচ্ছে। আর সিন্ডিকেটকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দিচ্ছে সরকার। পরিবহন খাতে লুটপাট আর দুর্নীতির খেসারত দিতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। কিছু অসৎ মানুষের মুনাফার লালসার কাছে অসহায় হয়ে পড়েছে সাধারণ যাত্রীরা। পরিকল্পিতভাবে নৌপথ ধ্বংস করা হয়েছে। এখন পরিকল্পিতভাবে রেলব্যবস্থা ধ্বংস করা হচ্ছে। গণমুখী পরিবহন ব্যবস্থা গড়ে তুলতে ধ্বংসের হাত থেকে রেলকে বাঁচাতে হবে।
রেল বাঁচাতে উদ্যোগে ধারাবাহিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ ৫ এপ্রিল ঢাকা থেকে জামালপুরগামী ‘রেল রক্ষা অভিযাত্রা’য় বিভিন্ন রেলস্টেশনে অনুষ্ঠিত সমাবেশে নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন। কমলাপুর, জয়দেবপুর, গফরগাঁও, ময়মনসিংহ ও জামালপুর রেলস্টেশনে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য আহসান হাবিব লাবলু, বাসদ-এর কেন্দ্রীয় নেতা বজলুর রশীদ ফিরোজ, সিপিবি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কাফি রতন, মনিরা বেগম অনু, বাসদ নেতা আব্দুর রাজ্জাক, নিখিল দাস, সিপিবি নেতা আসলাম খান, হযরত আলী। স্থানীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আব্দুল আজিজ তালুকদার, ইমাম হোসেন খোকন, শেখ বাহার মজুমদার, ফেরদৌস আরা মাহমুদা হেলন, আলী আক্কাস, মোজাহারুল ইসলাম, সুশান্ত দেবনাথ খোকন, আজিমউদ্দিন মাস্টার, সাইফুস সালেহিন প্রমুখ।
সিপিবি-বাসদ-এর নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, এক মন্ত্রী রেলে ‘কালো বিড়াল’ ধরার কথা বলে নিজেই ‘কালো বিড়াল’ হয়ে গেলেন! এখনো রেলের ‘কালো বিড়াল’ অধরাই রয়ে গেল। রেলের সম্পদ ও বরাদ্দ লুটপাট হয়ে যাচ্ছে। ভাড়া বাড়ছে, কিন্তু যাত্রীসেবার মান কমছে। ভাড়া বাড়ার সাথে সাথে রেলে লোকসান বাড়ছে গণবিরোধী ও ভুল নীতিতে রেল পরিচালনা করা হচ্ছে। বিশ্বব্যাংক, আইএমএফ, এডিবিসহ দাতাগোষ্ঠীর প্রেসকিপশন অনুসরণ করে রেলকে ধ্বংস করা হচ্ছে।
নেতৃবৃন্দ গণমুখী রেল রক্ষায় সিপিবি-বাসদ-এর চলমান আন্দোলনে সাধারণ মানুষকে শামিল হওয়ার আহ্বান জানান। নেতৃবৃন্দ রেলে ডবল লাইন চালু, রেলের বগি ও সংখ্যা এবং রেললাইন বাড়ানো, যাত্রীসেবার মান বাড়ানো, রেল-কারখানাগুলোকে কার্যকরভাবে সক্রিয় করা, দক্ষ জনবল গড়ে তোলা, রেলের সময় মেনে চলা ইত্যাদি দাবি জানান।
উল্লেখ্য, এর আগে ঢাকা থেকে জয়দেবপুর, ঢাকা থেকে নারায়ণগঞ্জ, চট্টগ্রাম থেকে কুমিল্লা, খুলনা থেকে ঈশ্বরদী পর্যন্ত সিপিবি-বাসদ-এর ‘রেল রক্ষা অভিযাত্রা’ অনুষ্ঠিত হয়। আগামী ৯ এপ্রিল পর্যন্ত ‘রেল রক্ষা অভিযাত্রা’ চলবে। ঈশ্বরদী থেকে সৈয়দপুর, ময়মনসিংহ থেকে কিশোরগঞ্জ, ময়মনসিংহ থেকে নেত্রকোণা, সিলেট থেকে শায়েস্তাগঞ্জ, চট্টগ্রাম থেকে দোহাজারী, চট্টগ্রাম থেকে হাটহাজারী, রাজশাহী থেকে ঈশ্বরদী, রাজশাহী থেকে চাপাইনবাবগঞ্জ, লালমনিরহাট থেকে গাইবান্ধা, বগুড়া থেকে সিরাজগঞ্জ, দিনাজপুর থেকে জয়পুরহাট, ফরিদপুর থেকে রাজবাড়ীসহ বিভিন্ন রুটে সিপিবি-বাসদ-এর ‘রেল রক্ষা অভিযাত্রা’ অনুষ্ঠিত হবে।