ঢাকায় দূরত্বভেদে বাসের ভাড়া বাড়ল এক থেকে তিন টাকা

284

ঢাকা মহানগরে চলাচলকারী সিএনজিচালিত বাস ও মিনিবাসের বর্ধিত নতুন ভাড়া গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে কার্যকর হয়েছে। নতুন ভাড়ার তালিকা অধিকাংশ বাসে টাঙানো না হলেও দূরত্বভেদে যাত্রীপ্রতি এক থেকে তিন টাকা বেশি ভাড়া আদায় করা হয়েছে। তবে এখনো ফাঁকা রাজধানীতে এ নিয়ে বড় কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।
চট্টগ্রাম মহানগরে সিএনজিচালিত বাস-মিনিবাসের নতুন ভাড়া গতকাল থেকে কার্যকরের কথা থাকলেও সেখানকার পরিবহন মালিক-শ্রমিক সংগঠনের নেতারা ৫ অক্টোবর থেকে তা কার্যকরের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ঝামেলার আশঙ্কায় এমন সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছেন তাঁরা।
সিএনজির মূল্যবৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে গত ১০ সেপ্টেম্বর সরকার ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরে প্রত্যেক যাত্রীর জন্য কিলোমিটারপ্রতি ভাড়া ১০ পয়সা বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নেয়। নতুন হার অনুসারে বড় বাসের ভাড়া হবে কিলোমিটারপ্রতি ১ টাকা ৭০ পয়সা। মিনিবাসের ভাড়া কিলোমিটারপ্রতি ১ টাকা ৬০ পয়সা। তবে সর্বনিম্ন ভাড়া আগের মতো বড় বাসে ৭ টাকা ও মিনিবাসে ৫ টাকা থাকবে।
সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অনুসারে, ঢাকা মহানগরের পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর, নরসিংদী, মানিকগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ জেলা ও ঢাকা জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে ঢাকা মহানগর পর্যন্ত সিএনজিচালিত যেসব বাস-মিনিবাস চলাচল করে, সেগুলোর ক্ষেত্রেও নতুন ভাড়া প্রযোজ্য হবে। তবে দূরপাল্লার বাসের ক্ষেত্রে নতুন ভাড়া প্রযোজ্য নয়।
বাস-মিনিবাসে নতুন ভাড়ার তালিকা তৈরি করে পরিবহন কমিটি। ঢাকা মহানগরে পরিবহন কমিটির প্রধান পুলিশ কমিশনার। আর যাবতীয় সাচিবিক দায়িত্ব বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ)। গত বুধবারই বাসগুলোতে নতুন ভাড়ার তালিকা টাঙানোর কথা ছিল। কিন্তু গতকালও অধিকাংশ বাসে ভাড়ার নতুন তালিকা দেখা যায়নি।
সকালে যাত্রাবাড়ী-গাবতলী পথের ২২ নম্বর, মোহাম্মদপুর-চিটাগাং রোড পথের ৩৬ নম্বরসহ আরও কয়েকটি পথের বাস-মিনিবাসের বেশ কয়েকজন যাত্রীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বাস-মিনিবাসগুলোতে নতুন ভাড়ার তালিকা নেই। গন্তব্য অনুসারে এক থেকে তিন টাকা বেশি ভাড়া নেওয়া হচ্ছে। মিরপুর থেকে মিনিবাসে কারওয়ান বাজারে আসা দুজন যাত্রী রবিউল ও রুবাইয়াত হোসেন বলেন, আগের চেয়ে এক টাকা করে বেশি নেওয়া হয়েছে। মৎস্য ভবন থেকে বিআরটিসির বাসে কারওয়ান বাজারে আসা এক যাত্রী অভিযোগ করলেন, আগে পাঁচ টাকা নেওয়া হলেও গতকাল নেওয়া হয়েছে আট টাকা।
কয়েকজন বাসমালিক বলেছেন, নতুন ভাড়ার তালিকা প্রতিটি কোম্পানি নিজ উদ্যোগে সংগ্রহ করবে, নাকি পৌঁছে দেওয়া হবে, তা তাঁরা জানেন না। এ বিষয়ে বিআরটিএ কোনো নির্দেশনাও দেয়নি।
চট্টগ্রাম: যাত্রীদের ভাঙচুরের আশঙ্কায় চট্টগ্রাম মহানগরে নতুন বাসভাড়া গতকালের পরিবর্তে ৫ অক্টোবর থেকে কার্যকরের সিদ্ধান্ত নিয়েছে পরিবহন মালিক ও শ্রমিক সংগঠনগুলো। বাসমালিকদের সূত্র বলেছে, চট্টগ্রাম সিটি সড়ক পরিবহন মালিক ফেডারেশন গতকাল চট্টেশ্বরী রোডে সংগঠনের কার্যালয়ে বৈঠক করে এ সিদ্ধান্ত নেয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম সিটি সড়ক পরিবহন মালিক ফেডারেশনের সভাপতি নুরুল আলম চৌধুরী। সভায় সংগঠনের নেতারা ও সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
বৈঠক সূত্র বলেছে, চট্টগ্রাম মহানগর এলাকায় বাসে ওঠানামায় প্রত্যেক যাত্রীকে সর্বনিম্ন পাঁচ টাকা গুনতে হবে। আর যে ভাড়া আগে ছয় টাকা, তা বেড়ে সাত টাকা হবে। এভাবে ১৫ টাকার ভাড়া ১৬ টাকা হবে। অর্থাৎ বর্তমানে যে হারে ভাড়া আদায় করা হচ্ছে, তাতে ৫ অক্টোবর থেকে শুধু এক টাকা বাড়বে।
চট্টগ্রাম সিটি সড়ক পরিবহন মালিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুল বলেন, ‘আমরা সরকার-ঘোষিত নতুন ভাড়া ৫ অক্টোবর থেকে কার্যকর করব। কারণ, বর্ধিত ভাড়া কার্যকর করার আগে প্রশাসনের সহযোগিতা প্রয়োজন। নইলে যাত্রীরা হামলা চালিয়ে গাড়ি ভাঙচুর করবে। এতে আমাদের ক্ষতি আরও বাড়বে। ৫ অক্টোবর আমরা সহযোগিতা পাব বলে আশা করছি।’
চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের উপকমিশনার (ট্রাফিক) মাসুদ-উল হাসান বলেন, ‘বাসমালিক ও শ্রমিকদের সংগঠনগুলো ৫ অক্টোবর থেকে বাসের নতুন ভাড়া কার্যকর করবে বলে আমাদের জানিয়েছে। ফলে ভাড়া নিয়ে নগরে আপাতত কোনো সমস্যা নেই।’সূত্র প্রথমআলো