‘ডিজিটাল হাজিরা’ বাধ্যতামূলক হচ্ছে সরকারি অফিসে

যুগবার্তা ডেস্কঃ নয়টার অফিস নয়টাতেই আসতে হবে। যখন তখন এসে হাজিরা খাতায় সই করার দিন একেবারেই শেষ হয়ে যাচ্ছে।
সচিবালয়সহ সারাদেশের সব সরকারি দপ্তরে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপস্থিতির ডিজিটাল হাজিরার ব্যবস্থা খুব দ্রুতই হয়ে যাচ্ছে। বিভিন্ন জেলায় এর কার্যক্রম শেষ হয়েছে, কিছু জেলায় চালু হয়েছে। বাকি জেলা ও দপ্তরগুলোতে এই বছরের মধ্যেই বাধ্যতামূলক চালু হয়ে যাবে।
এর মাধ্যমে কাগজে কলমে সই করার বদলে আঙ্গুলের ছাপে অফিসে প্রবেশ ও বাইরে যাওয়ার বিধান হতে যাচ্ছে। সরকারি অফিসগুলোতে এ জন্য পরবর্তী ত্রৈমাসিক বাজেটে এই ধরনের মেশিন কেনার জন্য অর্থ বরাদ্দের বিষয়টিও আলোচনা এসেছে।
অবশ্য এর মধ্যেই ঢাকার বিভিন্ন সরকারি দপ্তর ও মাঠ পর্যায়ের অফিসগুলোতে ডিজিটাল হাজির ব্যবস্থা কার্যকর হয়েছে।
গত বছরের ডিসেম্বরে সরকারের এক সিদ্ধান্তেই মূলত সরকারি অফিসগুলোতে ডিজিটাল হাজিরার কথা উঠে আসে। এছাড়া সর্বশেষ কয়েকদিন আগে ঢাকায় হয়ে যাওয়া জেলা প্রশাসক সম্মেলনেও ডিসি’রা মাঠ প্রশাসনের অফিসগুলোতে ডিজিটাল হাজিরার সুপারিশ করেন।
উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে চালু হয়েছে ‘ডিজিটাল হাজিরা’ পদ্ধতি।
এছাড়া গত জুনের শেষ সপ্তাহে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে উপজেলা পরিষদের সকল সরকারী কর্মকর্তা কর্মচারীগণের অফিস উপস্থিতি ডিজিটালের আওতায় আনা হয়েছে। সেখানে অফিসের কাগজে স্বাক্ষর করে হাজিরা গননা করা হবে না ফিঙ্গার প্রিন্টের মাধ্যমে উপস্থিতি দিতে হবে।
হাজীগঞ্জের মতো অন্যান্য উপজেলার কমপ্লেক্সে থাকা অফিসগুলোতেও এই ব্যবস্থা চালু করা হবে।
চট্টগ্রাম জেলা শিশু একাডেমিতে ডিজিটাল হাজিরা পদ্ধতি চালু হয়েছে। উদ্বোধনের সময় জেলা প্রশাসক বলেন, ডিজিটাল হাজিরা পদ্ধতির মাধ্যমে শিশু একাডেমির কর্মকর্তা, কর্মচারী ও প্রশিক্ষকগণ সঠিক সময়ে তাদের কর্মস্থলে উপস্থিত হচ্ছে কিনা এবং দায়িত্ব পালন শেষে সঠিক সময়ে কর্মস্থল ত্যাগ করছে কিনা তা নিশ্চিত করা যাবে।