জয়ের ক্ষতি করার ষড়যন্ত্রের দাবিকে সমর্থন করে না মার্কিন আদালত

62

যুগবার্তা ডেস্কঃ বাংলাদেশ সরকারের দাবি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজিব ওয়াজেদ জয়কে হত্যার ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে অবৈধভাবে এফবিআই রেকর্ড যোগাড় করার অপরাধে, এক বছর আগে নিউইয়র্কে তিন জনের দ- দেয়া হয়েছে। কিন্ত যুক্তরাষ্ট্রের আদালত এ দাবিকে সমর্থন করছেনা। বরং, ওই ব্যক্তিরা শেখ হাসিনার ছেলে সজিব ওয়াজেদ জয়ের শারীরিক ক্ষতি করার চেষ্টা করছিলো বলে আইনজীবীরা যে দাবি করেছিলো, বিচারিক আদালতের বিচারক তা সুনির্দিষ্টভাবে নাকচ করে দেয়। ২০১৫ সালের মার্চে যুক্তরাষ্ট্রের আদালত তাদের সাজা দেয়। আদালতের নথিতে দেখা যায় তাদের বিপক্ষে ঘুষ দেয়ার অভিযোগ আনা হয়েছিলো। যা সাংবাদিক শফিক রেহমানকে গ্রেপ্তারের জন্য যে কারণ দেখানো হয়েছে তার সঙ্গে একদম মেলেনা। জয়কে ‘অপহরণ ও হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগে দায়ের করা ফৌজদারি মামালায় গত শনিবার শফিক রেহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়।
জয়ের ব্যাপক প্রচারিত দাবি হলো ওই তিন ব্যক্তিকে যুক্তরাষ্ট্রের আদালত সাজা দিয়েছিলো তাকে হত্যার ষড়যন্ত্রের অপরাধে। আর শফিক রেহমানকে গ্রেপ্তারে ভিডিও ওই মামালার সঙ্গে সরাসরি যুক্ত। কিন্ত মার্কিন আদালতের নথি তাকে সমর্থন করেনা। যুক্তরাষ্ট্রের আদালত থেকে পাওয়া এসব তথ্য প্রথমবারের মতো প্রকাশ করেছে দ্য ওয়্যার।
শফিক রেহমানে গ্রেপ্তার বৈধ কি-না, এ বিষয়ে বিভ্রন্তি দূর করার লক্ষ্যে জয় তার ফেসবুকে একটি পোষ্ট দেন। এতে তিনি বলেন,‘ আমাকে অপহরণ ও হত্যার ষড়যন্ত্রের সঙ্গে শফিক রেহমান সরাসরি জড়িত এ বিষয়টি মার্কিন জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট খুঁজে পেয়েছে। তারাই আমাদের সরকারকে এর প্রমাণ প্রদান করেছে। তিনি এপ্রমাণের ভিত্তিতেই গ্রেপ্তার হয়েছেন। আমি আর বেশি কিছু বলবোনা। তবে, প্রমাণাদি অকাট্য।’
তিনি টুইটারে বলেন, ইউএস ডিওজে (ডিপার্টমেন্ট অব জাস্টিস) জানতে পেরেছে, সজীব ওয়াজেদকে হত্যার ষড়যন্ত্রে শফিক রেহমান জড়িত। প্রমাণও সরবরাহ করা হয়েছে।
এবিষয়ে ইউএস জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট-এর পিটার কার দ্য ওয়্যারকে বলেন, এ বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে চাইনা।আমাদের সময়.কম