জাতীয় পার্টির প্রতিনিধি দল আওয়ামীলীগ অফিসে

যুগবার্তা ডেস্কঃ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের সাথে আসন বন্টন নিয়ে বৈঠক বসছে জাতীয় পার্টি নেতারা।আজ দুপুরে আওয়ামীলীগের অফিসে এ বৈঠকে বসেছে একধীক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

নির্বাচনের তফসির ঘোষণার পর থেকেই জোট মহাজোটে আসন ভাগাভাগি নিয়ে আলোচনা চলে আসছে।জাতীয় পার্টি সরকারী জোটের কাছে একশত আসন দাবি করে আসছেন। সর্বশেষ ৭০ টি আসনের তালিকা তুলে দেন আওয়ামীলীগের হাতে।কিন্তু ৩৫ থেকে ৪০ টির বেশীর আসন ছাড় দিতে নারাজ আওয়ামীলীগ। এ নিয়ে চলছে দরকষাকষি।

সর্বশেষ জাতাীয় পার্টি ৫০ টি আসনে নীচে নামতে রাজি হবে বলে শক্ত অবস্থান নিয়েছেন বলে দলীয় একধীক সূত্র জানিয়েছেন।

সূত্র জানায়, আজকের বৈঠকে রয়েছেন কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব রুহুল অামিন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম কাজী ফিরোজ রশিদ, জিয়াউদ্দিন বাবলু, মশিউর রহমান রাঙ্গা, মজিবুল হক চুন্নু ও সুনীল শুভ রায়। অাওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে অাছেন সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী।

ইতিমধ্যে জাতীয় পার্টি ৬০ টি যে আসন গুলো দলীয়ভাবে চূড়ান্ত করেছে। এই ৬০ টি আসন নিয়ে আওয়ামীলীগের সাথে চূড়ান্ত আলোচনা চলছে। জোটের কাছে দাবি করা আসনগুলো ঢাকা-১ অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম, ঢাকা-৪ সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, ঢাকা-৫ মীর আবদুস সবুর আসুদ, ঢাকা-৬ কাজী ফিরোজ রশীদ, ঢাকা-১৩ সফিকুল ইসলাম সেন্টু এবং ঢাকা-১৭ হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, ময়মনসিংহ-৪ রওশন এরশাদ, ময়মনসিংহ-৫ সালাউদ্দিন আহমেদ মুক্তি, ময়মনসিংহ-৮ ফখরুল ইমাম, কিশোরগঞ্জ-৩ মজিবুল হক চুন্নু, নারায়ণগঞ্জ-৩ লিয়াকত হোসেন খোকা, নারায়ণগঞ্জ-সেলিম ওসমান, টাঙ্গাইল-৫ পীরজাদা মনির হোসেন, জামালপুর-২ মোস্তফা অাল মাহমুদ, জামালপুর-৩ এমএ সাত্তার, জামালপুর-৪, চট্টগ্রাম-৫ ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, চট্টগ্রাম- ৯ জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, চট্টগ্রাম-১২ এমএ মতিন(ইসলামী ফ্রন্ট), কক্সবাজার- ৩ সন্তোস শর্মা, নোয়াখালী-১ আলহাজ্ব আবু নাসের ওয়াহেদ ফারুক( ইসলামী মহাজোট), ফেনী-৩ লে. জে.(অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী, কুমিল্লা-২ আমির হোসেন ভূইয়া, কুমিল্লা-৮ নরুল ইসলাম মিলন, চাঁদপুর-৫ মাওলানা মো.আবু সুফিয়ান আল কাদেরী( ইসলামী মহাজোট), ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূইয়া। রংপুর-১ মশিউর রহমান রাঙ্গা, রংপুর-২ অধ্যাপক আসাদুজ্জামান চৌধুরী সাবলু, রংপুর-৩ হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, রংপুর-৪ মোস্তফা সেলিম বেঙ্গল, রংপুর-৫ ফকরুজ্জামান জাহাঙ্গীর, কুড়িগ্রাম-১ মোস্তাফিজুর রহমান, কুড়িগ্রাম-২ পনিরউদ্দিন আহমেদ, কুড়িগ্রাম-৩ ডা. আক্কাস আলী, লালমনিরহাট-১ মেজর অব. খালেদ আখতার, লালমনিরহাট-২ রোকন উদ্দিন বাবুল, লালমনিরহাট-৩ গোলাম মোহাম্মদ কাদের, নীলফামারী-১ জাফর ইকবাল সিদ্দিকী, নীলফামারী-৪ মো. শওকত চৌধুরী, গাইবান্ধা-১ ব্যারিস্টার শাৃমীম হায়দার পাটোয়ারি, গাইবান্ধা-৩ ব্যারিস্টার দিলারা খন্দকার। রাজশাহী-৩ শাহবুদ্দিন বাচ্চু, নাটোর-২ মজিবুর রহমান সেন্টু, নাটোর- ৪ সালাউদ্দিন মৃধা, বগুড়া-২ শফিকুল ইসলাম জিন্নাহ, বগুড়া-৬ নুরুল ইসলাম ওমর, জয়পুরহাট-২ কাজী আবুল কাশেম রিপন, ঠাকুরগাঁও-৩ মো.হাফিজউদ্দিন, দিনাজপুর-৬ মো.দেলোয়ার হোসেন। সিলেট-২ ইয়াহহিয়া চৌধুরী, সিলেট-৫ মো.সেলিম উদ্দিন। সুনামগঞ্জ-৪ পীর ফজলুর রহমান মিজবাহ, হবিগঞ্জ-১ আব্দুল মুনিম চৌধুরী বাবু, হবিগঞ্জ-৩ আতিকুর রহমান আতিক। বরিশাল-৬ নাসরিন জাহান রত্না, পটুয়াখালী-১ এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, পিরোজপুর-৩ ডা. রুস্তুম আলী ফরাজী। বরগুনা-২ আলহাজ্ব মিজানুর রহমান, সাতক্ষীরা-১ সৈয়দ দিদার বখত, বাগেরহাট-৪ সোমনাথ দে।