জটিলতা নিরসনে হিমশিম খাচ্ছে হজ এজেন্সিগুলো

45

যুগবার্তা ডেস্ক: ই-ভিসা ও বাড়ি ভাড়া জটিলতা নিরসনে হজ এজেন্সিগুলোর এখন নাকাল অবস্থা। মক্কা ও মদিনায় নির্দিষ্ট কয়েক দিনের জন্য বাড়ি ভাড়া করা নিয়েও চলছে নানা ধরনের টানাপোড়েন। নির্দিষ্ট সময়ে ভিসা না হলে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে হাজীরা সেসব বাড়িতে পৌঁছাতে পারবেন না। পৌঁছতে বিলম্ব হলে ওইসব বাড়িতে অন্য কোনো দেশের হাজীরা উঠে যাবেন। আগে ঘোষণা না দিয়ে পুনঃভিসা বাবদ হাজীপ্রতি ২ হাজার রিয়াল (৪৫ হাজার টাকা) দাবি করায় এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। হাজীদের এ ব্যাপারে মন্তব্য হচ্ছে, হঠাৎ এত টাকা জোগাড় করা কি সম্ভব। হজ এজেন্সিগুলোর বক্তব্য হচ্ছে, হাজীদের কাছে চাইলে এত অল্প সময়ে এত টাকা কি দিতে পারবেন তারা। উদ্ভূত পরিস্থিতি হজযাত্রী, হজ এজেন্সি ও ধর্ম মন্ত্রণালয়ের শীর্ষ কর্মকর্তা এবং সংশ্লিষ্টদের উদ্বিগ্ন করে তুলেছে। এদিকে হজযাত্রীদের ভিসা জটিলতার কারণে বাংলাদেশ বিমানের আজকের (শনিবার) দুটি হজ ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। অন্যদিকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে পাশ কাটিয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের কিছু দুর্নীতিপরায়ণ কর্মকর্তা-কর্মচারীর সঙ্গে আঁতাতের মাধ্যমে হজ মেডিকেল টিমে নাম লিখিয়ে ধরা খেলেন ৩৩ জন নার্স। তাদের যাত্রা বাতিল করা হয়েছে। রাজধানীসহ সারা দেশের বিভিন্ন সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তারা কর্মরত। হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) নেতাদের মাধ্যমে ধর্ম মন্ত্রণালয় জানতে পারে সৌদি আরব কর্তৃপক্ষ ২৫ জুলাই দাবি করেছে ২০১৫ ও ২০১৬ সালে যারা হজ করেছেন তাদের ভিসাপ্রতি ২ হাজার রিয়াল প্রদান করতে হবে। এ শর্ত পূরণ না করায় ভিসার কাগজপত্র জমা নেওয়ার পরও ভিসা ইস্যু করা হচ্ছে না। এ প্রক্রিয়ায় গত সাত দিনে প্রায় ১০ হাজার হজযাত্রীর ভিসার বিষয়টি ঝুলে গেছে। জানতে চাইলে হাব মহাসচিব শাহাদাত হোসেন তসলিম বলেন, ‘গত দুই বছর (২০১৫ ও ২০১৬) যারা হজ করেছেন তাদের ভিসা পেতে ২ হাজার রিয়াল অতিরিক্ত দিতে হবে এমন কোনো কথা হজ চুক্তিতে ছিল না। হজ এজেন্সিগুলো ভিসার জন্য কাগজপত্র দাখিল করলে ভিসা না পেয়ে কারণ খুঁজতে গিয়ে ২ হাজার রিয়াল দেওয়ার কথা জানতে পারেন। এ কারণে প্রায় ১০ হাজার হজযাত্রীর হজ গমন অনিশ্চিত হয়ে পড়তে পারে।
প্রসঙ্গত, চলতি বছর বাংলাদেশ থেকে সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় মোট ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজে যাওয়ার কথা রয়েছে। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হাজার পাঁচেক ছাড়া বাকি সব হজযাত্রী ৬৩৫টি এজেন্সির মাধ্যমে যাওয়ার কথা। গতকাল পর্যন্ত ৩৩ হাজার ৭৬২ হজযাত্রী সৌদি আরব পৌঁছেছেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ২ হাজার ৮৭৬ আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৩০ হাজার ৮৮৬ জন রয়েছেন। ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এ পর্যন্ত ৪৫ হাজারের বেশি ভিসা ইস্যু হয়েছে।
আজকের দুটি হজ ফ্লাইট বাতিল : বাংলাদেশ বিমানের আজকের (শনিবার) দুটি হজ ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। বাতিল হওয়া ফ্লাইট দুটি হলো বিজি ৩০৩৯ ও বিজি ৫০৩৫। হজযাত্রীদের ভিসা জটিলতার কারণে এসব ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে বলে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। একই কারণে গতকালও একটি (বিজি ৩০৩৯) ফ্লাইট বাতিল ঘোষণা করা হয়েছিল। এ নিয়ে মোট ১৮টি হজ ফ্লাইট বাতিল করা হলো।
ধরা খেলেন ৩৩ নার্স : স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে চলতি বছরের হজ মেডিকেল টিমে অন্তর্ভুক্ত করতে পাঠানো তালিকায় নাম না থাকা এমন ৩৩ জন নার্সের হজযাত্রা বাতিল করা হয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের একশ্রেণির অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীর সঙ্গে গোপনে লেনদেন করে ওই নার্সেরা নিজেদের নাম তালিকাভুক্ত করেন। নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদফতরের মহাপরিচালক তন্দ্রা শিকদার ৩১ জুলাই এক চিঠিতে যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন না থাকায় ওই ৩৩ নার্সকে হজ মেডিকেল টিমে অন্তর্ভুক্ত না করতে ও কর্মস্থল ত্যাগের অনুমতি না দিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ জানান। জানা গেছে, ওই ৩৩ জনের প্রায় প্রত্যেকে একাধিকবার সরকারি খরচে হজ করেছেন।-বাংলাদেশ প্রতিদিন