জঙ্গীবাদ-পাকিস্তানপন্থা ধ্বংসস্তুপের উপর দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ আরেক ধাপ উপরে উঠবে-ইনু

যুগবার্তা ডেস্কঃ জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি বলেছেন, জাতি আজ জঙ্গীবাদ ও পাকিস্তানপন্থার বিরুদ্ধে যুদ্ধে ফয়সালার প্রান্তরে দাঁড়িয়ে আছে। এ যুদ্ধেই ফয়সালা করতে হবে, বাংলাদেশ পাকিস্তান-আফগানিস্তানের পথে যাবে, না-কি জঙ্গীবাদ-পাকিস্তানপন্থাকে পরাজিত করে, জঙ্গীবাদ-পাকিস্তনপন্থার ধ্বংসস্তুপে দাঁড়িয়ে আরেক ধাপ উপরে উঠবে। তিনি বলেন, গণতন্ত্র বা মানবাধিকারের দোহাই দিয়ে জঙ্গী আর জঙ্গী-সঙ্গির সাথে আপস-মিটমাটের কোনো সুযোগ নেই। জঙ্গী আর জঙ্গী-সঙ্গিকে গণতন্ত্র বা নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় পুষে রাখা আত্মঘাতি। জনাব ইনু বলেন, জাসদের ৪৪ বছরের পথ পরিক্রমায় প্রমান হয়েছে, জাসদের উপর চাপিয়ে দেয়া এতো জুলুম-নির্যাতন-খুন-মিথ্যাচার-নিন্দা-সমালোচনার পরও জাসদ বাংলাদেশের রাজনীতিতে প্রাসঙ্গিক। কারণ, জাসদ দল বা নেতা স্বার্থকে প্রাধান্য না দিয়ে জাতীয় স্বার্থকে প্রাধান্য দিয়ে রাজনৈতিক নীতি ও কৌশল প্রণয়ন করে। জাসদ সংগ্রামের চ্যাম্পিয়ন, ঐক্যেরও চ্যাম্পিয়ন তাই জাসদ প্রাসঙ্গিক। জাসদ সমাজ বিপ্লবের মাধ্যমে সমাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠার রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নিয়ে দল গঠন করেছিল, সংগ্রাম করেছিল; আর আজও বৈষম্যের অবসানে সমাজবদলের সংগ্রাম ও সমাজতন্ত্র প্রাসঙ্গিক, তাই জাসদ প্রাসঙ্গিক। জাসদ স্বৈরশাসন-দুঃশাসনের বিরুদ্ধে জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষায় সংগ্রাম করে, তাই জাসদ প্রাসঙ্গিক। জাসদ হত্যা-ক্যু-ষড়যন্ত্র-সামরিক মাসনের বিরুদ্ধে গণতন্ত্রের সংগ্রাম সামনের কাতারে থাকে, তাই জাসদ প্রাসঙ্গিক। জাসদ সাম্প্রদায়িকতা জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার বলেই জাসদ প্রাসঙ্গিক। জাসদ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে, জাতীয় ইতিহাস-ঐতিহ্য ধারন করে, তাই জাসদ প্রাসঙ্গিক। জনাব ইনু নিজেকে জাসদের একজন পাহারাদার হিসাবে চিহ্নিত করে বলেন, জাসদ নেতাদের দল না, কর্মীদের দল। তাই জাসদের প্রতিষ্ঠাতা বা শীর্ষ নেতারা দল পরিত্যাগ করলেও কর্মীরা জাসদকে ধরে রাখে। তিনি দলের শহীদ বিপ্লবী ও প্রয়াত নেতৃবৃন্দের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান।
হাসানুল হক ইনু এমপি সোমবার বিকাল ৪ টায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে জাসদ আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির ভাষণে এ কথা বলেন। আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ১৪ দলের সমন্বয়ক, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জনাব মোহাম্মদ নাসিম, জাসদ সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি, সহ-সভাপতি মীর হোসাইন আখতার, ইকবাল হোসেন খান, এড. হাবিবুর রহমান শওকত, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আনোয়ার হোসেন, জাতীয় নারী জোটের আহ্বায়ক আফরোজা হক রীনা, বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য আনিসুর রহমান মল্লিক, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন, জাতীয় পার্টি-জেপি যুগ্ম মহাসচিব সাদেক সিদ্দিকী, জাসদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাদের চৌধুরী, ঢাকা মহানগর উত্তর জাসদের সভাপতি সফি উদ্দিন মোল্লা, ঢাকা মহানগর পূর্ব জাসদের সভাপতি শহীদুল ইসলাম, জাসদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুর রহমান চুন্নু, শওকত রায়হান, জাতীয় শ্রমিক জোট-বাংলাদেশ এর সাধারণ সম্পাদক নইমুল আহসান জুয়েল, জাতীয় যুব জোটের সভাপতি রোকনুজ্জামান রোকন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি মুহাম্মদ সামছুল ইসলাম সুমন প্রমূখ।
এছাড়াও প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে জাসদের আরও দু’ টি অংশ আলোচনা সভা করেছেন। আম্বিয়া- প্রধান অংশ কাকরাইল ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার ইনিষ্টিটিউট ও রবের অংশ প্রেসক্লাবে।