চার পুরোহিতকে খুনের হুমকি

30

যুতবার্তা ডেস্কঃ এবার তিন জেলায় চার পুরোহিতকে হত্যার হুমকি দিয়েছে জঙ্গিরা। রংপুরে এক জন এবং পিরোজপুরে দুই পুরোহিত হুমকি দেওয়া চিঠি পাওয়া গেছে। পটুয়াখালিতে এক আশ্রমের সেবায়েতকেও একই রকমের হুমকি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তাকে সরাসরি আশ্রমে হাজির হয়ে হুমকি দিয়ে গেছে। দেশ জুড়ে ধরপাকড়ের মধ্যেই তিন জেলায় চার জন এ ভাবে খুনের হুমকি পাওয়ায়, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়েছে পড়েছে।
সোমবার সকালে রংপুরের কলেজ রোডে আনন্দময়ী সেবাশ্রমের মন্দিরে একটি হলুদ খাম পড়ে থাকতে দেখে। ভোরে মন্দির চত্বরে সাফাইয়ের কাজ করার সময় এক মহিলা প্রথমে সেই খামটি দেখতে পান। খাম খুলে চিঠিটি প্রথমে তিনিই দেখেন। তাতে লেখা ছিল, ওই মন্দিরের পুরোহিত বিজয় চক্রবর্তীকে খুন করা হবে। চিঠিটি হাতে পাওয়ার পর বিজয় চক্রবর্তী পুলিশকে খবর দিয়ে জানান। রংপুরের পুলিশ তাঁর কাছ থেকে চিঠির প্রতিলিপি নিয়ে যায়। থানা সূত্র জানান, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে । তবে এই ঘটনায় স্থানীয় হিন্দু পরিবারগুলি আতংকিত।
পিরোজপুরে হুমকির চিঠি পেয়েছেন দু’টি মন্দিরের পুরোহিত। রবিবার রাতে সেখানকার পালপাড়া দুর্গা-কালী মন্দিরের পুরোহিত রুহিদাস পাল মন্দিরে ঢুকে চিঠি পড়ে থাকতে দেখেন। মন্দিরের সভাপতি নরেন্দ্রনাথ রায় বললেন, ‘‘পুরোহিতের নামে হুমকি দিয়ে একটি চিঠি এসেছে জানতে পেরেই আমরা বিষয়টি জেলাশাসককে জানিয়েছি।’’ পিরোজপুর কেন্দ্রীয় কালী মন্দিরের পুরোহিত সলিল মুখোপাধ্যায় শিবুও হুমকির চিঠি পেয়েছেন। সোমবার সকালে মন্দিরে ঢুকে তিনি ওই চিঠি পড়ে থাকতে দেখেন। তিনিও বিষয়টি মন্দির কমিটিকে জানান। পুরো বিষয়টি স্থানীয় থানাকে জানানো হয়েছে। পিরোজপুর সদর থানার ওসি মাসুমুর রহমান বিশ্বাস জানালেন, পুরোহিতদের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।
চতুর্থ হুমকির ঘটনাটি ঘটেছে পটুয়াখালি জেলার বাউফলে। থানা এলাকায় দেশবন্ধু বিশ্বকল্যাণ গীতাশ্রমের এক সেবায়েতকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে । ৭০ বছর বয়সী ওই সেবায়েতের নাম পরিতোষ সাহা। বাউফল থানার ওসি আজম খান ফারুকি জানালেন, সোমবার সকালে রোজকার মতো মন্দির ধোয়ামোছার কাজ করছিলেন পরিতোষবাবু। তখন এক যুবক রেনকোটে সর্বাঙ্গ ঢেকে সেখানে হাজির হয়। পরিতোষকে সে বলে, ‘খেয়ে-দেয়ে রেডি হও। তোমার দিন শেষ।’
এর আগে ঝিনাইদহে পর পর পুরহিত হত্যাসহ কয়েক স্থানে জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটায় পুরোহিতসহ সংখ্যালঘু সম্প্রদায় আতংকিত হয়ে পড়েছেন।