ঘূর্ণিঝড় ’মোরা’ মোকাবেলায় মোংলা বন্দরে পন্য ওঠা-নামা বন্ধ

46

মোংলা থেকে মোঃ নূর আলমঃ বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়ের জন্য মোংলা সমুদ্র বন্দরকে পুনঃ ৫ নম্বর বিপদ সংকেত দেখানো হয়েছে। মোংলায় দুপুরের পর থেকে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি শুরু হয়েছে। আকাশ মেঘাচ্ছন্ন রয়েছে। ঘূর্ণিঝড় মোরা মোকাবেলায় সোমবার সকালে মোংলা উপজেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ, সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, ফায়ার সার্ভিস, নৌবাহিনী, পুলিশ বিভাগ এবং এনজ্ওি প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন। সভায় ৪২ টি সাইক্লোন শেল্টার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদ এবং পৌরসভায় সচেতনতামূলক মাইকিং করা হচ্ছে। উপজেলা প্রশাসন, মোংলা পোর্ট পৌরসভা, কোস্ট গার্ড এবং মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষসহ মোট ৪টি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। সাগর উত্তাল রয়েছে। কোস্ট গার্ড এবং নেভী সাগরের জেলেদের নিরাপদ আশ্রয়ে যাওয়ার জন্য তৎপরতা চালাচ্ছে। মোংলা বন্দও কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কমোডর এ কে এম ফারুক হাসান জানান বন্দরের বর্হিনোঙ্গরে বাণিজ্যিক জাহাজে সকল ধরণের পন্য ওঠা-নামার কাজ বন্ধ রয়েছে। ১১টি বাণিজ্যিক জাহাজ, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের ৩২ টি এবং নৌ বাহিনীর ১০ টি জাহাজ নিরাপদে স্থানে অবস্থান করছে। সুন্দরবন এবং উপকূলে কোস্ট গার্ডের মোট ১২ সাইক্লোন শেল্টার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। মোংলায় ৯৯০ জন সিপিপি সদস্য, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিপেন্স, কোস্ট গার্ড এবং নৌবাহিনীর সদস্যরা ঘূর্ণিঝড় ’মোরা’ মোকাবেলায় প্রস্তুত এবং জনগনকে সচেতন করার জন্য মাঠ পর্যায়ে কাজ করছে বলে জানা গেছে। এছাড়া পর্যাপ্ত শুকনা খাবার যোগাড় আছে বলে জানিয়েছেন মোংলা উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোঃ রবিউল ইসলাম।