গেম সম্পর্কে ১০টি তথ্য

53

যুগবার্তা ডেস্কঃ ক্ল্যাশ অফ ক্ল্যানস কীভাবে বিনাপয়সায় খেলা যায় জানেন? ক্ল্যাশ অফ ক্ল্যানস তার রোজগারের ৫০ শতাংশ রোজগার করে তার প্রধানতম ১০ জন প্লেয়ারের কাছ থেকে। তাই বাকি খেলোয়াড়দের কাছ থেকে তাদের কিছু রোজগার না হলেও কিছু আসে যায় না।
ক্ল্যাশ অফ ক্ল্যানস অনেকেরই প্রিয় গেম। রইল এই গেম সম্পর্কে চমকে দেবার মতো ১০টি তথ্য—
১. এই গেমের ডেভলপার সংস্থা সুপারসেলের মূল কেন্দ্র হেলসিঙ্কি, ফিনল্যান্ডে অবস্থিত।
২. সুপারসেল এই গেম থেকে দৈনিক ৫ মিলিয়ন ডলার রোজগার করে।
৩. জর্জ ইয়ো নামের এক ব্যক্তি টানা ৬ মাস এক সঙ্গে ৫টি আই প্যাডে ক্ল্যাশ অফ ক্ল্যানস খেলে বিশ্ব রেকর্ড করেন। তিনি নাকি চান করার সময়েও এই গেম খেলতেন।
৪. পান্ডা নামের এক ব্যক্তি ক্ল্যাশ অফ ক্ল্যানস-এর গ্রামের পিছনে মাসে প্রায় ৭০০০ ডলার খরচ করেন। টাকার হিসেবে অঙ্কটা সাড়ে ৪ লক্ষ টাকারও বেশি।
৫. ক্ল্যাশ অফ ক্ল্যানস কীভাবে বিনাপয়সায় খেলা যায় জানেন? ক্ল্যাশ অফ ক্ল্যানস তার রোজগারের ৫০ শতাংশ রোজগার করে তার প্রধানতম ১০ জন প্লেয়ারের কাছ থেকে। তাই বাকি খেলোয়াড়দের কাছ থেকে তাদের কিছু রোজগার না হলেও কিছু আসে যায় না।
৬. ক্ল্যাশ অফ ক্ল্যানস-এর অ্যাক্টিভ ইউজারের সংখ্যা প্রায় ২কোটি ৯৫ লক্ষ।
৭. শোনা যায়, ক্ল্যাশ অফ ক্ল্যানস-এর অফিসে কর্মচারীর সংখ্যা মাত্র ১৫।
৮. P.E.K.K.A.র ফুল ফর্ম কী হতে পারে তা জানতে চেয়ে ২০১২ সালে ফেসবুকে একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করে সুপারসেল। ফেসবুক-এর মেম্বাররা যে নামটি ঠিক করেন সেটি ছিল Perfect Enraged Knight Killer of Assassins.
৯. ড্রাগনকে বাদ দিলে P.E.K.K.A.ই ক্ল্যাশ অফ ক্ল্যানস-এর একমাত্র চরিত্র যার চেহারা প্রতি লেভেলে বদলে যায়।
১০. ২০১৫ সালে ক্ল্যাশ অফ ক্ল্যানস-এর একটি বিজ্ঞাপনে অভিনয় করেন হলিউড অভিনেতা লিয়াম নিসন। বিজ্ঞাপনটি আমেরিকায় বিপুল জ‌নপ্রিয়তা অর্জন করে।