গাজীপুরে অপহৃত শিশু রাজশাহীতে উদ্ধার

রাজশাহী প্রতিনিধিঃ গাজীপুরের কালিয়াকৈর থেকে অপহৃত ১৯ মাস বয়সী এক শিশুকে রাজশাহীতে উদ্ধার করেছে র‌্যাব। সাকিব নামের ওই শিশুটিকে অপহরণ করে নিয়ে আসার মাত্র ২৫ ঘন্টার মাথায় সোমবার দুপুর দেড়টার দিকে জেলার পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর এলাকা থেকে র‌্যাব সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে। এ সময় শিশু অপহরণকারী চক্রের এক নারীসহ দুইজনকে আটকও করা হয়েছে।

শিশু সাকিব গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার মৌচাক এলাকার ঝুট ব্যবসায়ী মজিবর রহমানের ছেলে। আর আটককৃতরা হলেন, রাজশাহী মহানগরীর পশ্চিম বুধপাড়া এলাকার হারেছ আলীর ছেলে আমিনুল ইসলাম (২৮) ও তার ভাবি জেলার চারঘাট উপজেলার মিয়াপুর গ্রামের দুলু মহলদারের মেয়ে কেয়া খাতুন (১৮)।

শিশুটিকে উদ্ধারের পর বিকেল সাড়ে ৫টায় র‌্যাব-৫ এর সদর দফতরে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে র‌্যাব-৫ এর অধিনায়ক মাহবুব আলম জানান, কেয়া ও তার কথিত স্বামী সাইফুল ইসলাম ওরফে বুলবুল (২৪) গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার মৌচাক এলাকায় তিন মাস আগে থেকে ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। এক মাস আগে সাকিবের পরিবার একই এলাকায় ভাড়া বাসায় ওঠেন। এ সময় থেকেই বুলবুল শিশু সাকিবকে অপহরণের ছক কষতে থাকে।

পরে রোববার দুপুরে বুলবুল শিশুটিকে ছাদে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে তার মায়ের কাছ থেকে নিয়ে যান। এরপর তার স্ত্রী ও শিশুটিকে নিয়ে তিনি রাজশাহী পালিয়ে আসেন। পরে তারা ওই শিশুর বাবার সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনার পর শিশুটির বাবা কালিয়াকৈর থানায় একটি অপহরণের মামলা করেন। পাশাপাশি র‌্যাব-১ এর কাছেও অভিযোগ করেন। অভিযোগ পেয়ে র‌্যাবের পক্ষ থেকে গোয়েন্দা তৎপরতা শুরু করা হয়।
একপর্যায়ে র‌্যাব জানতে পারে শিশুটিকে নিয়ে অপহরণকারী চক্রটি পুঠিয়ার বানেশ্বর এলাকায় অবস্থান করছে। এরপরই র‌্যাব-৫ এর স্কোয়াড্রন লিডার কেবিএম মোবাশ্বের রহিমের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে অপহৃত শিশুসহ এই দুইজনকে আটক করে।

আটককৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে জানিয়ে র‌্যাব কর্মকর্তা মাহবুব আলম বলেন, অভিযান পরিচালনাকালে অপহরণকারী চক্রের মূলহোতা বুলবুলও বানেশ্বর এলাকায় ছিলেন। তবে তিনি পালিয়ে যেতে সক্ষম হন। তাকেও আটকের চেষ্টা চলছে। আর শিশু সাকিবের বাবা-মাকে খবর পাঠানো হয়েছে। তারা আসলে সাকিবকে তার বাবা-মায়ের কাছে তুলে দেওয়া হবে।