খালেদার প্রস্তাব ষড়যন্ত্রমুলক-জাসদ

যুগবার্তা ডেস্কঃ জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ স্থায়ী কমিটি রবিবার বিকালে দলের কার্যালয়ে সভা হাসানুল হক ইনু এমপির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এ সভায় উপস্থিত ছিলেন শিরীন আখতার এমপি, এড. হাবিবুর রহমান শওকত, নাদের চৌধুরী প্রমূখ।
সভার প্রস্তাবে বলা হয় গত ১৮ নভেম্বর সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে বিএনপি চেয়ারপার্সন ও ২০ দলীয় জোট নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কর্তৃক নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন বিষয়ে উত্থাপিত প্রস্তাবকে অযৌক্তিক, সংবিধান বিরোধী এবং ষড়যন্ত্রমূলখ হিসাবে আখ্যায়িত করে প্রত্যাখান করা হয়। সভার প্রস্তাবে বলা হয়, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন নিয়ে বেগম জিয়ার প্রস্তাব জামাতকে হালাল করা আর সেনাবাহিনীকে রাজনৈতিক বিতর্কে টেনে আনার অপপ্রয়াস ছাড়া আর কিছুই নয়। তিনি অনিশ্চিত আলোচনার নামে সময়ক্ষেপন করে সাংবিধানিক সংকট ও অনিশ্চয়তা সৃষ্টির অসৎ উদ্দেশ্য থেকে এ প্রস্তাব দিয়েছেন। তিনি এ প্রস্তাবের মধ্য দিয়ে প্রজাতন্ত্রের কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইন-শৃংখলা রক্ষাবাহিনীর প্রতি তার অনাস্থায় বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছেন বলে দলটি মনে করেন। নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য বর্তমানে প্রধান বিচারপতি মনোনীত আপীল বিভাগের একজন বিচারপতি, হাইকোর্ট ডিভশনের একজন বিচারপতি, মহা হিসাব নিরীক্ষক, পিএসসির চেয়ারম্যানের সমন্বয়ে সার্চ কমিটি রয়েছে। তিনি তার প্রস্তাবের মধ্য দিয়ে এ সকল সাংবিধানিক পদের প্রতিও তার অনাস্থার বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছেন। সভার প্রস্তাবে আরও বলা হয়, দেশে এই মূহুর্তে কোন সাংবিধানিক সংকট নেই। তবে দেশের ১৬ কোটি মানুষই মনে করে, জঙ্গিবাদ দেশের প্রধান সংকট এবং জঙ্গিবাদ মোকাবেলায় দেশবাসী ঐক্যবদ্ধ। কিন্তু বেগম জিয়া দেশের প্রধান বিপদ জঙ্গিবাদ বিষয়টিকে বরাবরের মতই আড়াল করে গেছেন। তিনি দেশে সাংবিধানিক অনিশ্চয়তা সংকট সৃষ্টি করে ঘোলাজলে জঙ্গিবাদ ও যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষার ঘৃণ্য রাজনীতি থেকে একপাও সরে আসেননি। তিনি প্রমাণ করেই চলেছেন, তিনি জঙ্গির সঙ্গী এবং বিএনপি জঙ্গি উৎপাদন ও পুনরুৎপাদনের কারখানা। সভা থেকে বেগম জিয়ার ষড়যন্ত্রমূলক রাজনীতি ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ থাকার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানানো হয়।