কীর্তনখোলায় তেলবাহী ট্যাংকারের বিস্ফোরণে দগ্ধ-৪

বরিশাল অফিস: কীর্তনখোলা নদীর চাঁদমারী খেয়াঘাট এলাকায় এমটি এ্যাংকর এইজ নামের তেলবাহী ট্যাংকারের ইঞ্জিনরুমে বিস্ফোরনে চারজন অগ্নিদগ্ধ ও একজন আহত হয়েছে। আহতদের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারী ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে আটটার দিকে।

অগ্নিদগ্ধরা হলেন, ট্যাংকারের চীফ ইঞ্জিনিয়ার শহীদুল ইসলাম, গ্রীজার হুমায়ুন কবির, সেকেন্ড ড্রাইভার নাজমুল হোসেন ও লস্কর আবু সুফিয়ান। আহত বাবুর্চি সানাউল্লাহ প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

শেবাচিমের বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারী ইউনিটের রেজিস্ট্রার ডাঃ মোঃ শাহীন জানান, হাসপাতালে চারজন অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় ভর্তি হয়েছে। এদের মধ্যে তিনজনের শরীরের ৭৫ শতাংশ এবং শ্বাসনালী পুড়ে যাওয়ায় তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তবে একজন শঙ্কামুক্ত রয়েছেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত ১৫ ফেব্রুয়ারী তেলবাহী ট্যাংকারটি চট্টগ্রাম থেকে সাড়ে নয় লাখ মিটার পেট্রোল ও ডিজেল নিয়ে বরিশালের যমুনা ডিপোতে দেয়ার জন্য কীর্তনখোলা নদীর চাঁদমারী এলাকার নোঙর করে রাখে।

শনিবার রাতে ট্যাংকারটি যমুনা ওয়েল কোম্পানীর ডিপোতে তেল ডেলিভারী দেয়ার জন্য ইঞ্জিন চালু করলে ইঞ্জিনরুমে বিকট শব্দে আগুন ধরে যায়। এসময় ট্যাংকারে থাকা ১১ নাবিকের মধ্যে চারজন অগ্নিদগ্ধ হয়। ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়দের সহায়তায় আহতদের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।