কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়ন বৈধ

35

যুগবার্তা ডেস্কঃ টাঙ্গাইল ৪ আসনের উপনির্বাচনে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়ন পত্র অবৈধ ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন ও রির্টার্নিং কর্মকর্তার দেয়া সিদ্ধান্ত স্থগিত ও কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়ন পত্র গ্রহণ করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।
বুধবার শুনানি শেষে বিচারপতি মিফতা উদ্দিন চৌধুরী ও বিচারপতি ইজারুল হক আখন্দের সমন্ময় গঠিত হাইকোর্টের অবকাশকালীন বেঞ্চ নির্বাচন কমিশনের এ সিদ্ধান্ত স্থগিত করেন। এদিকে এ আদেশের ফলে টাঙ্গাইল ৪ আসনে উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে কাদের সিদ্দিকীর আর কোন বাধা নেই বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী।
এর আগে টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসন থেকে দশম সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন কাদের সিদ্দিকীর ভাই লতিফ সিদ্দিকী। গত ১ সেপ্টেম্বর তিনি পদত্যাগ করায় আসনটি শূন্য ঘোষণা করে গত ৩ সেপ্টেম্বর গেজেট প্রকাশ করে সংসদ সচিবালয়। এরপর নির্বাচন কমিশন এ আসনে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। সে মোতাবেক আগামী ১০ নভেম্বর এখানে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
অন্য দলের পাশাপাশি এতে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের প্রার্থী হিসেবে কাদের সিদ্দিকী ও তাঁর স্ত্রী নাসরিন সিদ্দিকী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। কিন্তু ঋণখেলাপের অভিযোগে গত ১৩ অক্টোবর (মঙ্গলবার) রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আলীমুজ্জামান তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন। এরপর গত ১৬ অক্টোবর শুক্রবার এই দুই নেতা রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ইসিতে আপিল আবেদন করেন।
১৮ অক্টোবর রোববার বিকেলে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিবউদ্দীন আহমদের নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের নির্বাচন কমিশন কাদের সিদ্দিকীর আপিল খারিজ করে রায় দেন।
২০১৪ সালে টাঙ্গাইল-৮ (সখিপুর) আসনের উপনির্বাচনেও প্রার্থী হতে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন কাদের সিদ্দিকী। সে সময়ও ঋণখেলাপের অভিযোগে তার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছিলো। আমাদের সময়.কম