ওয়ার্কার্স পার্টি সাম্প্রদায়িক শক্তির সাথে কখনো আপস করবে না: বাদশা

রাজশাহী অফিস: বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা বলেছেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের আদর্শে ওয়ার্কার্স পার্টি কখনো সাম্প্রাদায়িক কোন শক্তির সাথে আপস করবে না। আমরা অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার লড়াই চালিয়ে যাবে। এবং সেই আদর্শ ধরে আমরা রাজনীতিকে এগিয়ে নিতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের আদর্শের বাংলাদেশ গড়তে হলে লুটেরাদের হাত ভেঙ্গে দিতে হবে।’

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি পবা উপজেলার উদ্যোগে সাম্প্রদায়িক শক্তির সাথে আপস নয়, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক ধর্ম নিরপেক্ষ শক্তি ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজশাহীর কোর্ট স্টেশনে এক জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যকালে তিনি এই কথা বলেন।

রাজশাহীর উন্নয়ন সম্পর্কে বাদশা বলেন, ‘রাজশাহীর জন্য নিঃস্বার্থ ভাবে কাজ করে চলেছি। উন্নয়নের জন্য অর্থ নিয়ে এসেছি। উন্নয়নের জন্য প্রথম দিন থেকে আমি সংসদে একের পর এক প্রস্তাব তুলে ধরেছি। আজ রাজশাহী অনেক পরিবর্তন হয়েছে। এই পরিবর্তনের টাকা সংসদে বুক উঁচু করে রাজশাহীর পক্ষে কথা বলেছিলাম বলে এই অর্থ এসেছে। বিভিন্ন জায়গায় দেখি ফিতা কাটা হয়, উদ্বোধন করা হয়। ’

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘আমি টাকা নিয়ে আসি, অর্থ নিয়ে আসি, তহবিল নিয়ে আসি, অর্থ মন্ত্রণালয়ের সাথে লড়াই করে রাজশাহীর উন্নয়নের জন্য অর্থ নিয়ে আসি। আমরা দেখি যে কে বা কারা বিভিন্ন প্রকল্পের ফিতা কেটে উদ্বোধন করছে।’

বাদশা বলেন, ‘ওয়ার্কার্স পার্টি জনগণের স্বার্থ দেখে। বাজেট আসছে আর এর সাথে সুবিধাবাদ রয়েছে। বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন শোষণমুক্ত বাংলাদেশ গড়বো। অথচ আজ বাজেটের টাকা পাচার হয়। শেয়ারবাজার কেলেঙ্কারী হয়। কোটি কোটি টাকা লুটপাট হয়। বাজেটের অর্থ আসে এদেশের খেটে খাওয়া মানুষের কাছ থেকে, যারা বিদেশে কাজ করে রেমিটেন্স পাঠান তাদের অর্থে। তাদের অর্থেই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। যে বাজেট হচ্ছে সেটা গরীব মানুষের স্বার্থে হতে হবে।

আমি অর্থমন্ত্রীকে চ্যালেঞ্জ করতে চাই, যদি বাজেট গরীব মানুষের স্বার্থে না হয় তা হলে ওয়ার্কার্স পার্টি সংগ্রাম গড়ে তুলবে।

সাংসদ বাদশা বলেন, আমি সারাজীবন রাজশাহীর মানুষের জন্য লড়াই করেছি। সেই লড়াই এর ফলে রাজশাহী এখন উন্নত নগরীতে পরিণত হচ্ছে। রাজশাহীতে আইটি ভিলেজ হচ্ছে। এতে ৪০ হাজার যুবকের কর্মসংস্থান হবে। রাস্তাঘাটের উন্নয়ন হবে। রাজশাহী একটি আধুনিক নগরীতে পরিণত হবে। আগামীতে রাজশাহী সকল উন্নয়নে থাকবো। আর রাজশাহী রেশম কারখানা ও টেক্সটাইল মিল চালু করে ছাড়বো।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি রাজশাহী জেলা ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আশরাফুল হক তোতার সভাপতিত্বে ও রাজপাড়া থানা সম্পাদক আবদুল মতিনের পরিচালনায় জনসভায় বক্তব্য দেন, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি পলিটব্যুরো সদস্য নুর আহম্মদ বকুল, অ্যাড. টিপু সুলতান এমপি, মহানগর সভাপতি লিয়াকত আলী লিকু, সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু, জেলা সম্পাদক মন্ডলির সদস্য কয়েস উদ্দিন প্রমুখ।