একনেক সভায় ২২ হাজার ৮৭৬কোটি টাকার ১০ প্রকল্পের অনুমোদন লাভ

যুগবার্তা ডেস্কঃ জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির সভায় ২২ হাজার ৮৭৬ কোটি ৩১ লক্ষ টাকার প্রাক্কলিত ব্যয় সম্বলিত ১০টি নতুন ও সংশোধিত প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে । মঙ্গলবার ঢাকায় শেরেবাংলা নগরে প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপার্সন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক সভায় এ অনুমোদন দেয়া হয় । একনেক সদস্যবৃন্দ, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী এবং সচিববৃন্দ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ।
পরিকল্পনা মন্ত্রী একনেক সভা শেষে সভার বিস্তারিত সাংবাদিকদের জানান । তিনি বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে সরকার দেশের বিদ্যুৎ ব্যবস্থার উন্নয়নে যুগান্তকারি কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে ।ইতোমধ্যে দেশের শতকরা ৭৮ভাগ জনগোষ্ঠী বিদ্যুতের আওতায় এসেছে । তিনি বলেন ২০২১সালের মধ্যে দেশের সকলের ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে দেয়ার পরিকল্পনা নিয়ে সরকার কাজ করছে । এই ধারা অব্যহত থাকলে ২০১৯ সালের মধ্যেই সরকার দেশের শতভাগ জনগোষ্ঠীকে বিদ্যুতের আওতায় আনতে সক্ষম হবে । প্রধানমন্ত্রী ব্রহ্মপুত্র নদের নাব্যতা রক্ষায় ড়্রিেজংয়ের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন । একনেক সভায় অনুমোদিত প্রকল্প সমূহ হচ্ছে , পাওয়ার গ্রীড নেটওয়ার্ক স্ট্রেনদেনিং প্রজেক্ট আন্ডার পিজিসিবি” প্রকল্প। এ প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ১৩৭০৩.৩১ কোটি টাকা। এর মধ্যে জিওবি ৩৭২৯.২৫ কোটি টাকা, সংস্থার নিজস্ব তহবিল ২৬৬.৪৪ কোটি টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য ৯৭০৭.৬২ কোটি টাকা।বিতরণ ব্যবস্থার ক্ষমতাবর্ধন, পুনর্বাসন ও নিবিড়করণ (ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগ)” প্রকল্প ।
এ প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ৩৪০৩.৮৩ কোটি টাকা। এর মধ্যে জিওবি ১৩৫৫.৫৭ কোটি টাকা সংস্থার নিজস্ব তহবিল ৪.২৭ কোটি টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য ২০৪৩.৯৯ কোটি টাকা। প্রকল্প সাহায্য প্রদানকারী সংস্থা এডিবি। “বিতরণ ব্যবস্থার ক্ষমতাবর্ধন, পুনর্বাসন ও নিবিড়করণ (রাজশাহী, রংপুর, খুলনা ও বরিশাল বিভাগ)” প্রকল্প।এ প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ৩০৭৭.৫৪ কোটি টাকা। এর মধ্যে জিওবি ১২০১.৭৭ কোটি টাকা সংস্থার নিজস্ব তহবিল ৪.২৭ কোটি টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য ১৮৭১.৫০ কোটি টাকা। এ প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ৬২৮.১০ কোটি টাকা। এর পুরোটাই জিওবি।
গ্যাস ট্রান্সমিশন ক্যাপাসিটি এক্সপানশন-আশুগঞ্জ টু বাখরাবাদ (২য় সংশোধিত)” প্রকল্প।এ প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ৫১৩.৪৬ কোটি টাকা। এর পুরোটাই জিওবি। মুরাদপুর ২নং গেইট ও জিইসি ফ্লাইওভার নির্মাণ (২য় সংশোধিত)” প্রকল্প।এ প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ৬৯৬.৩৪ কোটি টাকা।

এর মধ্যে জিওবি ৬৭১.৩৪ কোটি টাকা এবং সংস্থার নিজস্ব তহবিল ২৫.০০ কোটি টাকা। ঢাকার গুলশান, ধানমন্ডি ও মোহাম্মদপুরে ২০টি পরিত্যক্ত বাড়ীতে ৩৯৮টি আবাসিক ফ্ল্যাট নির্মাণ” প্রকল্প।এ প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ৩৬৬.৫৪ কোটি টাকা। এর পুরোটাই জিওবি। “টঙ্গী-কালিগঞ্জ-ঘোড়াশাল-পাঁচদোনা আঞ্চলিক মহাসড়কের (আর-৩০১) শহীদ ময়েজউদ্দিন সেতু হতে পাঁচদোনা পর্যন্ত অংশ জাতীয় মহাসড়ক মানে উন্নীতকরণ” প্রকল্প। এ প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ৮২.৯৭ কোটি টাকা। এর পুরোটাই জিওবি। কক্সবাজার জেলার বাঁকখালী নদী বন্যা নিয়ন্ত্রণ, নিস্কাশন, সেচ ও ড্রেজিং প্রকল্প (১ম পর্যায়)” প্রকল্প।এ প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ২০৩.৯৩ কোটি টাকা। এর পুরোটাই জিওবি। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অপারেশন সক্ষমতা ও দক্ষতা বৃদ্ধিকরণ” প্রকল্প এ প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ২০০.৩০ কোটি টাকা। এর পুরোটাই জিওবি।