উন্নত জীবনের জন্য শ্রমজীবী পেশাজীবীদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে-জাসদ

71

যুগবার্তা ডেস্কঃ মহান মে দিবস ও আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবসের ১৩০তম বার্ষিকীতে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল – জাসদের উদ্যোগে আজ শনিবার বিকেলে সমাবেশ করেছে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ।
সভাপতি শরীফ নূরুল আম্বিয়া সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তৃতা করেন জাসদের কার্যকরী সভাপতি জনাব মইন উদ্দিন খান বাদল এমপি, সাধারণ সম্পাদক জনাব নাজমুল হক প্রধান এমপি, স্থায়ী কমিটির সদস্যবৃন্দ ড. মুশতাক হোসেন ও জনাব মোহাম্মদ খালেদ, সহ-সভাপতি জনাব মহব্বত আলী, রফিকুল রইসলাম খোকন, যুগ্ম সম্পাদকবৃন্দ সর্বজনাব মঞ্জুর আহমেদ, করিম শিকদার, মোহাম্মদ মহসীন, মোখলেছুর রহমান মুক্তাদির, সাংগঠনিক সম্পাদক ড. বীণা শিকদার ও জাসদ ঢাকা মহানগর শাখার নেতৃবৃন্দ প্রমুখ। সমাবেশ শেষে মে দিবসের সাথে সংহতি প্রকাশ করে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার পর্যন্ত মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।
শরীফ নূরুল আম্বিয়া সভাপতির বক্তৃতায় বলেন, ”গণতন্ত্র ও মানবতার চেতনা সুপ্রতিষ্ঠিত করতেই মহান মে দিবস উদযাপন করতে হবে। আট ঘন্টার কর্মদিবস বাস্তবায়নের রক্তাক্ত শ্রমিক আন্দোলন সময়ের পরিক্রমায় এখন অনেক অগ্রসর হয়েছে। শ্রমজীবীদের নিরাপত্তা ও মানবিক অধিকার গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক কাঠামোর মধ্যেই নিশ্চিত করতে হবে। বিদ্যমান সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা রক্ষা করেই আমাদের অগ্রসর হতে হবে।
মইন উদ্দিন খান বাদল এমপি বলেন, ”দেশের উন্নয়ন হচ্ছে এটা অনস্বীকার্য, কিন্তু এটা আরো সত্য যে, এ উন্নয়নের নাথে সম্পদের বৈষম্য অসম্ভব প্রকট হয়ে উঠেছে। সম্পদের বৈষম্য কমিয়ে না আনলে সমাজ অনিশ্চয়তা ও অস্থিরতার মধেই থাকবে। বাংলাদেশে বর্তমান মুহুর্তে গণতন্ত্র আক্রান্ত। সরকারের উচিত শ্রমজীবী মানুষের শক্তিশালী হাতকে একত্রিত করে গণতন্ত্রের শত্রু জঙ্গিবাদী, সাম্প্রদায়িকতাবাদীদের ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করা।”
নাজমুল হক প্রধান এমপি বলেন, ”শ্রমিকরাই দেশে গণতন্ত্র ও সমাজতন্ত্রের অগ্রসৈনিক। বাংলাদেশের শ্রমিক সমাজ মুক্তিযুদ্ধ সহ বিভিন্ন গণতান্ত্রিক সংগ্রামে সে ঐতিহ্য বজায় রেখেছে। তাই শ্রমিকদের দাবি আদায় না করে এদেশে গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা ও জাতীয় মুক্তি নিশ্চিত হতে পারে না।