উত্তর কোরিয়া সংকটে কূটনৈতিক সমাধান ক্ষীণ: ট্রাম্প

25

যুগবার্তা ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার যুদ্ধ হবার সম্ভাবনাটাই বেশি। তবে কূটনৈতিকভাবেই এই সংকটের সমাধান চান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিন পিংও একই ইচ্ছা ব্যক্ত করেছেন বলে তিনি জানান।

সম্প্রতি কোরিয়া উপদ্বীপে যুদ্ধের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র। উত্তর কোরিয়ার ঘন ঘন ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ও পরমাণু পরীক্ষা চালানোর জন্য দেশটির ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু এসব নিষেধাজ্ঞা কোনো কাজে না আসলে সামরিকভাবে এই সমস্যা সমাধানের কথা ভাবছে যুক্তরাষ্ট্র।

ডোনাল্ড ট্রাম্প একটি প্রখ্যাত বার্তা সংস্থাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের একাধিক প্রেসিডেন্ট উত্তর কোরিয়ার সমস্যা সমাধানে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা করে গেছেন। বহুদিন ধরে এই চেষ্টা চালিয়ে যাবার পর কোনও ফল পাওয়া যায়নি। যে কারণে যুক্তরাষ্ট্র এখন সামরিকভাবে এই সমস্যা সমাধানে অগ্রসর হয়েছে। তিনি আরও বলেন, এই সামরিক সমাধানের পথ অনেকেই নেননি। দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের কথা ভেবেই সামরিক পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। কিন্তু এখন পরিস্থিতি যে পর্যায়ে রয়েছে তাতে সামরিক হস্তক্ষেপ ছাড়া আর কোনও পথ খোলা নেই। তার টেবিলেই উত্তর কোরিয়ায় হামলার ফাইল অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে। তবে তিনি কূটনৈতিকভাবে এই সমস্যার সমাধান চান।

দক্ষিণ কোরিয়াতে ক্ষেপণাস্ত্র বিধ্বংসী থাড মোতায়েন করা হয়েছে। এজন্য দক্ষিণ কোরিয়াকে এক বিলিয়ন ডলার দিতে হবে।

তবে কোরিয়া উপদ্বীপে যাতে যুদ্ধ শুরু না হয় সেজন্য চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং বহু চেষ্টা করে যাচ্ছে। ট্রাম্পের মতে তিনি একজন ভালো মানুষ যিনি তার দেশের লোকদের খুব ভালোবাসেন।