উত্তম সাংবাদিকতার ধরণ-গঠন

265

সৈয়দ আমিরুজ্জামানঃ
সংবাদপত্রে যা কিছু ছাপা হয় তার মধ্যে প্রধান উপাদান সংবাদ। যে পত্রিকা যতো বেশি ভাল সংবাদ প্রকাশ করতে পারে সাধারণত তার কদর বেশি, এর প্রচার সংখ্যাও বেশি। ভালো সংবাদ ছাপার পেছনে একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক হলো পত্রিকার নীতি-কৌশল-দর্শন ও প্রতিদিনের বিষয় নির্বাচন। সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সংবাদ যিনি তৈরি করছেন বা লিখছেন তার প্রস্তুতি, দক্ষতা ও দৃষ্টিভঙ্গি বা মনোভাব।
সংবাদ-এর দুটো গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্যের কথা উল্লেখ করতে হয়। এর একটি হলো, ছয়টি প্রশ্নের উত্তর জেনে নেওয়া বা সংগ্রহ করা, যার শুরু ‘ক’ দিয়ে। যেমন কী, কে, কখন, কোথায়, কেন এবং কীভাবে। ঘটনা বা দুর্ঘটনা কী, কে বা কারা তার সাথে জড়িত বা ক্ষতিগ্রস্ত, কোনদিন এবং কোন সময়ে ঘটেছে, কোথায় ঘটেছে তার সুনির্দিষ্ট বর্ণনা, কেন ঘটেছে এবং কীভাবে ঘটেছে তার সংক্ষিপ্ত বিবরণ।
সংবাদ-এর দ্বিতীয় বৈশিষ্ট্য কাঠামো সংক্রান্ত। সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়ে লিখতে হবে সংবাদ-সূচনা। তথ্য সাজাতে হবে যৌক্তিক বিবেচনায়, ক্রমানুসারে নয়। ঘটনার মধ্যে যে বিষয়টি সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ তা থাকবে সংবাদ-সূচনায়।
একটি সংবাদ করার পর অধিকাংশ ক্ষেত্রে রিপোর্টারকে অনুসরণ করতে হয় ঘটনা ও তার সাথে সংশ্লিষ্ট নানা বিষয় ও পরবর্তী ঘটনা। ব্যাখ্যা বিশ্লেষন ও পর্যাপ্ত তথ্য সম্বলিত সংবাদ অত্যন্ত জরুরি।
যদি একজন রিপোর্টার তার পরিশ্রম ও মেধা কাজে লাগায় তবে তার পত্রিকার সম্পাদকও খুশি হন। সাংবাদিকতার সার্বিক মান উন্নয়নের জন্য একজন রির্পোর্টার বড় দায়িত্ব পালন করে থাকেন। একটি সংবাদ করার পর ফলো আপ হওয়া জরুরী। এতে সংবাদ-এর লক্ষ্য মানুষকে প্রয়োজনীয় সব তথ্য-বিশ্লেষণ দেয়া এবং মানুষের কল্যাণ অর্জিত হবে।
যে কোন সংবাদ তৈরি করতে গিয়েই অনুসন্ধান করতে হয় এবং একজন রির্পোটারকে যতœবান ও কৌশলী হতে হয়। অনুসন্ধানী সংবাদ-এর জন্য একজন রির্পোটারকে অনেক বাড়তি পরিশ্রম করতে হয়। অনুসন্ধান ছাড়া ডেপথ রিপোর্ট সম্ভব নয়। কোনো ঘটনার উপর সাধারণ সংবাদ হবার পর তার থেকে অনেক সময় একটি ডেপথ রিপোর্টের সূচনা হয়। ডেপথ রিপোর্টের মধ্যেও অনুসন্ধানী রিপোর্টের অনেক বৈশিষ্ট্য আছে। অনুসন্ধানী সংবাদ মানেই সেই রিপোর্ট যা অন্যায় ও অনৈতিকতা উন্মোচন করে। ডেপথ রিপোর্টও অনৈতিকতা ও বেআইনী কাজ উন্মোচন করতে পারে, তবে অনুসন্ধানী সংবাদ সব সময়ই অনৈতিকতা উন্মোচন করবে। অনুসন্ধানী সংবাদ করার জন্য চাই সুচিন্তিত পদক্ষেপ, সময়, অঙ্গীকার ও প্রয়োজনীয় অর্থের যোগান।
অনুসন্ধান বা Investigation শব্দটি এসেছে ইতালীয় শব্দ ওহাবংঃরমধৎব থেকে যার অর্থ কোনো কিছুর অভ্যন্তরে প্রবেশের চেষ্টা। অনুসন্ধানের সমার্থক শব্দ ‘তদন্ত’ (প্রশ্নোত্তর পদ্ধতি), ‘পরীক্ষা নিরীক্ষা’ (তথ্য সংগ্রহ), ‘গবেষণা (বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি) ইত্যাদি। অনুসন্ধান শব্দের অর্থ থেকেই বুঝা যায় সম্ভাব্য সব ধরনের পদ্ধতি ব্যবহার করে উদ্দেশ্যমূলকভাবে লুকানো তথ্য উদঘাটনই অনুসন্ধানী সংবাদ। আমাদের চারপাশে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য, উপাত্ত, অবস্থা ও উদ্বেগ আছে যা কেউ উদ্দেশ্যমূলকভাবে লুকানো হচ্ছে না, কিন্তু অনুসন্ধান না করলে এবং পরিশ্রম না করলে সে সব মানুষ জানবে না।
নিয়মিত সাধারণ সংবাদ-এর বিষয় যেমন প্রচুর, অনুসন্ধানী রিপোর্টের বিষয়বস্তুও তেমন অভাব নেই। অনুসন্ধানী রিপোর্টের উদ্দেশ্য নি: সন্দেহে জনকল্যাণ, দুর্বলের পক্ষ নেয়া এবং মানুষের বিবেককে নাড়া দেয়া। অনুসন্ধানী রিপোর্ট অন্যায়কারীকে চিনিয়ে দেয়, অতীতকে টেনে আনে বর্তমানে, বর্তমান সময়কে ব্যাখ্যা করে সঠিক পরিপ্রেক্ষিতে এবং ভবিষ্যতের ইঙ্গিত দেয়। ক্ষমতাবানের বিবেককে নাড়া দেয়া এবং দুর্বলকে সচেতন করে তোলাও অনুসন্ধানী রিপোর্টের একটি কাজ। অনুসন্ধানী রিপোর্ট মানেই মৌলিক রিপোর্ট যা সামাজিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক নানা সমস্যার ব্যাখ্যা দেয়, জটিল সমস্যার ধারা (প্রবণতা) দেখায়, অন্যায় প্রতিহত করে, দুর্নীতি সম্পর্কে মানুষকে সজাগ করে তোলে এবং ক্ষমতার অপব্যবহার বন্ধ করে। সৈয়দ আমিরুজ্জামান, সাংবাদিক ও কলামিস্ট, বিশেষ প্রতিনিধি-সাপ্তাহিক নতুন কথা, প্রধান সম্পাদক, আরপিনিউজ২৪.কম