উজিরপুরে সন্ত্রাসী হামলার শিকার বাবা ও ছেলে

উজিরপুর প্রতিনিধিঃ বরিশালের উজিরপুরে মুদিমনোহারীর মালামাল বাকীতে বিক্রি না করায় বাবা ও ছেলেকে পিটিয়ে রক্তাক্ত যখম করেছে সন্ত্রাসীরা বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ ও আহত সুত্রে জানা যায় উপজেলার বামরাইল ইউনিয়নের সানুহার গ্রামের সেলিম মৃধার ছেলে সোহাগ মৃধা সানুহার বন্দরে মুদিমনোহারী দোকান থেকে একই এলাকার মৃত আঃ গনি আকনের ছেলে রাছেল আকন নয়ন বিভিন্ন সময় বাকিতে মালামাল নিয়ে থাকে। এছাড়া অসৎ উদ্দেশ্যে হাসিল করার জন্য বাকী না নিয় ঘুরাঘুরি করতে থাকে এবং নানান তালবাহানা শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার দুপুরে রাছেল আকন নয়ন পাওনা টাকা না দিয়ে অজ্ঞাত কয়েকজন বখাটেদের নিয়ে ওই দোকানে গিয়ে পুনরায় নিত্যপ্রয়োজনীয় মালামাল বাকীতে ক্রয় করতে যায়। কিন্তু বাকীতে মালামাল বিক্রি না করায় ক্ষিপ্ত হয়ে ব্যবসায়ী সোহাগ মৃধাকে দোকান থেকে টানা হেচরা করে বের করে তাকে এলোপাথাড়ি ভাবে পিটিয়ে আহত করে। এসময় তার বাবা সেলিম মৃধা(৬০) প্রতিবাদ করলে পিটিয়ে তার হাত ভেঙ্গে দেয়। এছাড়া দোকান ভাংচুর করে ১০ হাজার টাকার ক্ষতিসাধন করে এবং বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে দোকানে থাকা নগদ ২০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। আহতদের স্হানীয়রা উদ্ধার করে উজিরপুর হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ব্যাপারে আহত সেলিম মৃধা বাদী হয়ে উল্লেখ্য অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে উজিরপুর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযুক্ত রাছেল আকন নয়নের কাছে বিষয়টি জানার জন্য ফোন করা হলে মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। এদিকে মুদিমনোহারী দোকান মালিক সোহাগ মৃধা বলেন রাছেল আকন নয়ন এলাকায় মাদক, জুয়াসহ বিভিন্ন অপরাধের সাথে জড়িয়ে পরেছে। এলাকার সাধারণ তার কাছে জিম্মি। সে এলাকায় মূর্তীয়মান আতঙ্ক। তার ভয়ে মুখ খুলছেনা সাধারণরা। মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আলী আর্শাদ জানান উভয় পক্ষের অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।