উজিরপুরে শ্রেনী কক্ষে সহপাঠি ধর্ষন। আটক-২

82

বরিশাল প্রতিনিধি ॥
শ্রেনী কক্ষে আটক রেখে দশম শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার দুপুরে বরিশালের উজিরপুর উপজেলার পূর্ব সাতলা ইউনাইডেট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেনীর কক্ষে এ ঘটনা ঘটে। ধর্ষনের অভিযোগে দুই কিশোরকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ধর্ষিতা ছাত্রীর পিতা মোঃ সিরাজুল ইসলাম হাওলাদার বাদী হয়ে উজিরপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন । অভিযুক্তরা হলো ওই স্কুল ছাত্রীর সহপাঠী উপজেলার পটিবাড়ী গ্রামের শাজাহান মোল্লার ছেলে রাজীব মোল্লা, চাঁন সদরদারের ছেলে রাব্বী সরদার, উত্তর সাতলা গ্রামের রহমান সরদারের ছেলে মোহাম্মদ উল্লাহ, কবির হাওলাদারের ছেলে নাহিদ হাওলাদার। পুলিশ রাব্বী ও মোহম্মদ উল্লাকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরন করেছে । ধর্ষনের শিকার ছাত্রীর শারীরিক পরীক্ষার জন্য বরিশাল শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ওয়ান স্টপ ক্রাইসি সেন্টারে (ওসিসি) পাঠানো হয়েছে।

স্কুল ছাত্রী জানায়, আসন্ন এসএসসি পরীক্ষার পূর্ব প্রস্তুতির জন্য বিদ্যালয়ের খন্ডকালীন শিক্ষকের কাছে ওই ছাত্রসহ (ধর্ষক) ছয় এসএসি পরীক্ষার্থী প্রাইভেট পরত। ঘটনার দিন শিক্ষক ভবেশ পান্ডে প্রাইভেট না পরালেও রাজীব মোল্লা সহ ধর্ষনে সহযোগীতা কারি অভিযুক্তরা পড়ার কথা বলে ওই ছাত্রীকে বিদ্যালয়ে ডেকে আনে। পরবর্তীতে (প্রাইভেট পরানোর কক্ষ) ষষ্ঠ শ্রেনীর কক্ষের দরজা আটকিয়ে রাজীব তাকে ধর্ষন করে। বিষয়টি স্কুল মাঠে থাকা স্থানীয় যুবক শহিদুল ইসলাম টের পেলে ধর্ষন কারীরা পালিয়ে যায়। পরে সে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে স্থানীয়দের জানিয়ে ছাত্রীকে বাড়ী পাঠিয়ে দেয়।

ঘটনার সত্যতা স্বিকার করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আইয়ুব আলী বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। ১৬ ডিসেম্বরের ছুটি ও সরকারী নানান কর্মসূচি থাকায় এখন পযর্ন্ত কোন ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়নি। শীঘ্রই সভায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যববস্থা গ্রহন করা হবে।

উজিরপুর থানার ওসি মো. নুরুল ইসলাম জানান, ওই ঘটনায় ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে চারজনের বিরুদ্ধে থানায় ধর্ষন ও ধর্ষনের সহযোগীতার অভিযোগে মামলা দায়ের করেছে। অভিযুক্তদের মধ্য রাব্বী ও মোহম্মদ উল্লাকে আটক করা হয়েছে। অপরদের আটকের জন্য বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হচ্ছে।