ইংল্যান্ডে অভিষেকেই মুস্তাফিজ ম্যান অব দ্য ম্যাচ

50

যুগবার্তা ডেস্কঃ সাসেক্সের হয়ে ইংলিশ কাউন্টিতে খেলতে নেমে প্রথম ম্যাচেই নিজের নামের যথার্থতা দেখিয়ে দিলেন মুস্তাফিজ। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত তিনটার দিকে তিনি ৪ উইকেট নিয়ে চমক দেখালেন। নিজের চতুর্থ ওভারে ৪র্থ উইকেট নিয়ে তিনি সাসেক্সকে ২৪ রানের জয় এনে দেন। মুস্তাফিজ এদিন সাসেক্সের বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে কম রান (২৩) দিয়ে সবচেয়ে বেশি উইকেট দখল করেন। একে একে শিকার করেছেন রবি বোপার, রায়ান টেন ডেশকাটে, জেমস ফস্টার ও ক্যালাম টেইলরের উইকেট। এদিন দুর্দান্ত একটি ক্যাচও নিয়েছেন বাংলাদেশের এই বিস্ময় বালক। পেলেন ম্যান অব দ্যা ম্যাচ সম্মান। প্রথমে ব্যাট করে সাসেক্স করেছিল ৬ উইকেটে ২০০ রান। জবাবে এসেক্স করেছে ৮ উইকেটে ১৭৬। সাসেক্সের দেওয়া ২০১ রানের টার্গেটে নেমে ভালোই শুরু করে এসেক্স। ৫ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে ৫০ রান তুলে ফেলে এসেক্স। যখন রানের চাকা থামানোর প্রয়োজন তখনই মুস্তাফিজকে বোলিংয়ে আনেন লুক রাইট। ইনিংসের ষষ্ঠ ও নিজের প্রথম ওভারে বোলিং করতে এসে নিজের মাত্র ৪ রান দেন মুস্তাফিজ। এরপর ষোলোতম ওভারে মুস্তাফিজ বোলিংয়ে আসেন। এসেক্সের তখন প্রয়োজন ৩০ বলে ৬৮ রান। হাতে ছয় উইকেট। ২৬ বলে ৩২ রান করা রবি বোপারা কেবল ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছিলেন। নিজের দ্বিতীয় ওভারের দ্বিতীয় বলে বোপারাকে লুক রাইটের হাতে ক্যাচে পরিণত করেন মুস্তাফিজ। কাউন্টিতে নিজের প্রথম উইকেটটি তুলে নেন তিনি। ওই ওভারে মাত্র ২ রান দিয়ে একটি উইকেট নেন দ্য ফিজ। নিজের তৃতীয় ও দলের আঠারোতম ওভারে বোলিং করতে আসেন মুস্তাফিজ। প্রথম বলে তাকে ছক্কা মারে রায়ান টেনডেশকাটে। ওই ওভারের তৃতীয় বলেই জেমস ফস্টারকে বোল্ড করেন মুস্তাফিজ। ওভারের শেষ বলে ক্যালাম টেইলরকে বোল্ড করেন কাটার মাস্টার। ৩ ওভার শেষে তার বোলিং ফিগার ১৩ রানে বিনিময়ে ৩ উইকেট। নিজের ও ইনিংসের শেষ ওভারে বোলিং করতে এসে দ্বিতীয় বলে টেনডেশকাটে (২২ বলে ২৬) তিমল মিলসের হাতে ক্যাচে পরিণত করেন মুস্তাফিজ। ৪ ওভার শেষে মুস্তাফিজের বোলিং ফিগার ২৩ রানে ৪ উইকেট। ওভার প্রতি ৫.৭৫ রান দিয়ে তিনিই সাসেক্সের সেরা বোলার। এদিন টস হেরে ব্যাট করতে নেমে এসেক্সের বিপক্ষে সাসেক্স সংগ্রহ করে ২০০ রানের বিশাল স্কোর। উদ্বোধনী জুটিতে ক্রিস ন্যাশ এবং লুক রাইট মিলে ৫ ওভারেই তুলে ফেলে ৪৩ রান। এ সময় ১৬ বলে ২৫ রান করে ক্রিস ন্যাশ আউট হয়ে যান। এরপর ফিলিপ সল্টকে নিয়ে ৬৩ রানের জুটি গড়ে সাসেক্সকে বড় স্কোরের স্বপ্ন দেখান লুক রাইট। যদিও ২৪ বলে ৩২ রান করে আউট হয়ে যান তিনি। ১৯ বলে ৩৩ রান করেন সল্ট। সর্বোচ্চ ২১ বলে ৪৫ রানে অপরাজিত থাকেন ক্রিস জর্ডান। ১টি বাউন্ডারির সঙ্গে ৫টি ছক্কার মার মারেন তিনি। ২৪ রান করেন রস টেলর। মূলত কেউ বড় স্কোর না করলেও মাঝারিমানের কয়েকটি স্কোরের কারণেই রানের ৬ উইকট হারিয়ে পাহাড়ে চড়েছে সাসেক্স। পরে মুস্তাফিজের বোলিং তোপে জয় তুলে নেয় সাসেক্স। মুস্তাফিজ যেভাবে ইংল্যান্ডে: পাকিস্তানের পিএসএল, ভারতের আইপিএলের পর ক্রিকেটের জনক ইংল্যান্ডেও খেলার সুযোগ পেয়েছেন টাইগার পেসার মোস্তাফিজুর রহমান। তবে, আইপিএলের আসরে শিরোপা জেতা এই বিস্ময়বালক খেলতে পারলেও পাকিস্তানের ঘরোয়া লিগ পিএসএলে ইনজুরির কারণে খেলতে পারেননি। এবার ন্যাটওয়েস্ট টি-টোয়েন্টি ব্লাস্ট টুর্নামেন্টে সাসেক্সের হয়ে ইংলিশ কাউন্টিতে অভিষেক ঘটলো এই কাটার মাস্টারের। ইংল্যান্ডের প্রাচীনতম কাউন্টি দলটির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার পর চেমসফোর্ডে বাংলাদেশ সময় রাত বৃহস্পতিবার রাত ১২টায় শুরু হওয়া এসেক্স ইগলসের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে মোস্তাফিজের অভিষেক ঘটে ইংল্যান্ডের মাটিতে। মোস্তাফিজ তৃতীয় বাংলাদেশি হিসেবে ইংল্যান্ডের এই টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে খেলার সুযোগ পেয়েছেন। এর আগে এই টুর্নামেন্টে খেলেছেন সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল। তবে, ঐতিহ্যবাহী এই দলটিতে নাম লেখানো বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেটার মোস্তাফিজ। উস্টারশায়ারের হয়ে ওয়ানডে কাপ ও টি-টোয়েন্টি খেলার পাশাপাশি কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপেও খেলেছেন সাকিব। তামিম নটিংহ্যামশায়ারের হয়ে খেলেছেন টি-টোয়েন্টিতে। ঠিক এক বছর আগে ২১ জুলাই, ২০১৫ চট্টগ্রামে টেস্ট অভিষেক হয়েছিল মোস্তাফিজের। দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে সেই টেস্টে ৪ উইকেট নিয়ে অভিষেকটা মন্দ করেননি এই বাঁহাতি পেসার। ভারতের ঘরোয়া লিগ তথা ক্রিকেট বিশ্বের সবথেকে জমজমাট আসর আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের হয়ে অভিষেক ঘটেছিল মোস্তাফিজের। জাতীয় দলে অভিষেকের পরই বাংলাদেশের হয়ে মুস্তাফিজ উপহার দিয়ে চলেছেন রঙিন সব মুহূর্ত। গত বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় এই তরুণের। ওয়ানডে অভিষেকে ভারতকে একাই গুড়িয়ে দেন তিনি। দশম বোলার হিসেবে ওয়ানডে অভিষেকে পাঁচ উইকেট দখল করে ইতিহাসের পাতায় নাম লেখান। পরের ম্যাচে ৪৩ রানে নেন ৬ উইকেট। ক্যারিয়ারের প্রথম দুই ম্যাচে পাঁচ বা তার চেয়ে বেশি উইকেট নিয়ে ইতিহাস গড়েছিলেন তিনি। পরে বিশ্ব রেকর্ডও গড়েন তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ১৩ উইকেট নিয়ে। প্রথমবারের মতো আইপিএল খেলতে গিয়েও বাজিমাত করেন। আইপিএলের নিলামে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুকে পেছনে ফেলে বিশ্ব ক্রিকেটের বিস্ময় মোস্তাফিজকে দলে টানে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। আর এই বেঙ্গালুরুর বিপক্ষেই প্রথম ম্যাচে মাঠে নামেন মোস্তাফিজ। ১ কোটি ৪০ লাখ রুপিতে (২ লাখ ৮ হাজার ডলার) মোস্তাফিজকে নেয় হায়দ্রাবাদ। ষষ্ঠ বাংলাদেশি খেলোয়াড় হিসেবে ভারতের এই ক্রিকেট লিগ খেলতে মাঠে নামেন তিনি। এর আগে আইপিএলে আবদুর রাজ্জাক, মাশরাফি, মোহাম্মদ আশরাফুল, তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসান ডাক পান। আইপিএলের অভিষেক ম্যাচে ৪ ওভার বল করে ২৬ রান দিয়ে ২ উইকেট নেন কাটার মাস্টার। –