আসাদকে বোমা মেরে উড়িয়ে দেয়ার আহবান ৫১ মার্কিন কূটনীতিকের

38

যুগবার্তা ডেস্কঃ সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদকে বোমা মেরে উড়িয়ে দেয়া উচিত বলে মনে করেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিক মহল। দেশটির ৫১ জন কূটনীতিক আসাদের নেতৃত্বাধীন সরকারের ওপর সামরিক হামলা চালানোর জন্য মার্কিন সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তারা মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সামরিক নীতি নিয়েও সমালোচনা করেছেন। বৃহস্পতিবার মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র জন কিবরি এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। এদিকে সিরিয়ায় মার্কিন বাহিনী হামলা চালালে মধ্যপ্রাচ্যে আগুন জ্বলবে বলে হুশিয়ারি দিয়েছে আসাদ সরকারের মিত্ররাষ্ট্র রাশিয়া। খবর এএফপি, নিউইয়র্ক টাইমস, ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল ও প্রেস টিভির। ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানিয়েছে, বাশার আল আসাদ সরকারের ওপর বিমান বা ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর আহ্বান জানিয়ে ৫১ জন কূটনীতিকের একটি ‘বিচ্ছিন্নতাবাদী চ্যানেল’ অভ্যন্তরীণ একটি দলিলে সই করেছেন। কর্মকর্তাদের দাবি, সিরিয়ায় বর্তমানে মার্কিন সামরিক নীতি আসাদবিরোধীদের বিপক্ষে কাজ করছে এবং এটি আসাদকে ক্ষমতায় রাখতে সহযোগিতা করছে। হোয়াইট হাউসের গৃহীত পদক্ষেপের বিপক্ষে পররাষ্ট্র দফতরের কর্মকর্তাদের ভিন্নমত প্রকাশে স্মারক বা চিঠি প্রদান নতুন কিছু নয়। অবশ্য অর্ধশতাধিক কূটনীতিকের এ ধরনের স্মারকে স্বাক্ষর করা দুর্লভই বটে। মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর এ দলিলকে গোপনীয় কূটনৈতিক বার্তা বলে এর অস্তিত্বের কথা স্বীকার করেছে, তবে তাতে কী আছে তা জানাতে চায়নি। এ ব্যাপারে জন কিরবি বলেন, সিরিয়া ইস্যুতে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর থেকে লেখা ওই দলিল সম্পর্কে সচেতন রয়েছে হোয়াইট হাউস। আমরা ওই দলিলকে পর্যালোচনা করছি। শিগগিরই তা সামনে চলে আসবে। ওই দলিলে বলা হয়েছে, আসাদকে থামাতে ব্যর্থ হলে আইএসের মতো উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর ক্ষমতাই কেবল বাড়বে। যদিও তারা এ মুহূর্তে যুদ্ধক্ষেত্রে কৌশলগত বিপর্যয়ের মধ্যে রয়েছে। দলিলের সঙ্গে জড়িত একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেছেন, দলিলটি হয়তো মার্কিন পরবর্তী প্রশাসনের জন্য বৈদেশিক নীতির ক্ষেত্রে দৃষ্টিভঙ্গি হিসেবে কাজ করবে। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিকের সিরিয়া হামলা দাবির তাৎক্ষণিক কূটনৈতিক প্রতিক্রিয় দেখিয়েছে রাশিয়া। বাশার আল আসাদের নেতৃত্বাধীন সরকারের ওপর সামরিক হামলা চালানো হলে মধ্যপ্রাচ্যে আগুন জ্বলবে হুশিয়ারি দিয়েছে রাশিয়া। সামরিক উপায়ে সিরিয়ার সংকট সমাধানের বিরোধিতা করে আসছে মস্কো। শুক্রবার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা বলেন, এটা আমাদের কাছে কোনো গোপন বিষয় নয় যে, সামরিক উপায়ে সিরিয়ার সংকট অবসানের লক্ষ্যে আমেরিকার রাজনীতিতে একটি শক্তি সক্রিয় রয়েছে। তিনি আরও বলেন, মধ্যপ্রাচ্যে সহিংসতা বাড়ানোর জন্য গোপন কূটনৈতিক তৎপরতার আশ্রয় নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র আসাদকে পতনের পাঁয়তারা করছে। দেশটির এমন চক্রান্তে আইএসই বেশি লাভবান হবে বলে মনে করেন জাখারোভা। আসাদ সরকারের ওপর বিমান হামলা চালানোর জন্য মার্কিন কূটনীতিকদের তৎপরতার পর শুক্রবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বলেন, সিরিয়া ইস্যুতে ৫০ জনের বেশি মার্কিন কূটনীতিক যে গোপন দলিলে সই করেছেন তা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিবৃতি। ওয়াশিংটনে ফিরে গিয়ে এ বিষয়ে আলোচনা করবেন বলে জানান তিনি। কোপেনহেগেন সফরত জন কেরি সংবাদমাধ্যমকে আরও বলেন, ‘এ বিবৃতির প্রতি আমার অগাধ শ্রদ্ধা রয়েছে। ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর থেকে জাতিসংঘের অনুমোদন এবং সিরিয়া সরকারের অনুমতির তোয়াক্কা না করেই আইএসকে লক্ষ্য করে সিরিয়ার অভ্যন্তরে বিমান হামলা চালাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্রবাহিনী। তবে এসব হামলায় আইএসকে তো নির্মূল করতে পারেইনি বরং এতে বহু বেসামরিক ব্যক্তি নিহত হওয়ার পাশাপাশি অনেক অবকাঠামো ধ্বংস হয়ে গেছে।