আরও ক্রিকেটার তালিকাভুক্ত হচ্ছে বিপিএলে

78

নভেম্বর শেষ সপ্তাহে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ টোয়েন্টি২০ টুর্নামেন্ট (বিপিএল) তৃতীয় আসর। গত বুধবার সংবাদ সম্মেলন করে নতুন তারিখও ঘোষণা করেছে বিসিবি। সেই সঙ্গে আগামী ২৬ অক্টোবর ‘প্লেয়ার বাই চয়েস’ (লটারি অনুষ্ঠান) এর মাধ্যমে ফ্র্যাঞ্চাইজিরা তাদের খেলোয়াড় সংগ্রহ করে নিতে পারবে। লটারির জন্য এরই মধ্যে ১৯৫ জন বিদেশী এবং ১২২ জন দেশী ক্রিকেটারের তালিকা প্রকাশ করেছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। যদিও শনিবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন দেশী-বিদেশী দুই বিভাগেই আরও কিছু খেলোয়াড় যোগ হবে।
বিদেশী খেলোয়াড় যোগ হওয়া প্রসঙ্গে জালাল ইউনুস বলেছেন, ‘আরও ১৫-২০ জনের মতো খেলোয়াড় যুক্ত হচ্ছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ইংল্যান্ড থেকে কিছু খেলোয়াড়ের নতুন কিছু নাম এসেছে। ওদের নামগুলো যুক্ত করা হচ্ছে।’
এখনো পর্যন্ত ১৫০ জন বিদেশী ক্রিকেটার রেজিস্ট্রেশন পূর্ণ করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন জালাল ইউনুস। আগের তালিকায় অনূর্ধ্ব-১৯ দলের কিছু খেলোয়াড় থাকলেও সেখান থেকে তাদের নাম প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে বলে শনিবার সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন তিনি। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, ‘দেশীয় ক্রিকেটারদের তালিকায় ৯ জন অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটার ছিল। কিন্তু সামনে ওদের অনেকগুলো খেলা আছে। এ জন্য ওরা সময় দিতে পারবে না। সবকিছু মিলিয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটারদের বিপিএলে রাখা হচ্ছে না।’
তিনি আরও যোগ করেছেন, ‘দেশীয় ক্রিকেটারের সংখ্যা আরও ৮-৯ জন বাড়ছে। ওই তালিকাতে ক্রিকেটার নাজিম উদ্দিনের নাম আছে কিনা, এ বিষয় আমি জানি না। শুধু শুনেছি সেখানে ৮-৯ জন খেলোয়াড় যোগ হয়েছে।’
কিছু বিষয় এখনো চূড়ান্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেছেন, ‘১৩ জন স্থানীয় ক্রিকেটারের সঙ্গে ১২ জন বিদেশী খেলোয়াড় নিতে হবে ফ্র্যাইঞ্চাজিদেরকে। বিদেশী ক্রিকেটার এই মুহূর্তে কমানো হচ্ছে না। তবে এই বিষয়টি নিয়ে ভেবে দেখতে হবে। এর কারণে কিছু দেশীয় খেলোয়াড় বাদ পড়ে যাবে। আমরা বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল, ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সঙ্গে বসে কিছু সিদ্ধান্ত নেব।’
ফ্র্যাঞ্চাইজিরা আইকন খেলোয়াড়দের কিভাবে নেবে এই বিষয়ে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। এ প্রসঙ্গে জালাল ইউনুস বলেছেন, ‘এই বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে এটা লটারির মাধ্যমেও হতে পারে।’