আজ সকালটা বেশ কোমল, ঘটনাটা বিব্রতকর।

শহীদুল ইসলাম রাসুঃ অফিস যাবার পথে কিছুটা পথ রিকসায় যেতে হয়। আজ যেই রিকাশায় উঠলাম সেটার চালক একজন বয়স্ক লোক। প্রথমে খেয়াল করিনি তাড়াহুড়ার জন্যে। পরে যখন সে কথা বলল তখনি টের পেলাম। বাবা বলে শুরু করলেন তিনি , আমার সমস্ত মনোযোগ কেড়ে নিয়ে যা বলল তা না লিখে পারলাম না। কিডনির মারাত্মক অসুস্থতা নিয়ে কেবল দুই মুঠো খাবার জন্যে রিকশা চালাচ্ছেন তিনি। নিজের অসুখের জন্যে বিনে পয়সার ডাক্তার দেখাতে পারলেও পারছেন না ওষুধ কিনতে। একজন ডাক্তার তাকে ওষুধ দেবার কথা বলে আগামি রমজান পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বলেছেন। তখন তিনি যাকাত দিবেন। পথ শেষ হলেও তার কথা যেন শেষ হয়না । আর আমিও পারি না তাকে আগামি রমজান পর্যন্ত বসিয়ে রাখতে … কত টাকাই তো স্নো পাউডার এর পেছনে খরচ হয়, আজ না হয় একজন বয়স্ক শ্রমজীবীর কল্যাণে হোক । তার বেঁচে থাকার তীব্র আকাঙ্ক্ষা পূর্ণতা পাক আর কিছুটা দিন…।-ফেইসবুক থেকে সংগ্রহ