আজ মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভারের একাংশ খুলছে

48

যুগবার্তা ডেস্কঃ কয়েক দফা সময় বাড়ানোর পর অবশেষে মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভারের একটি অংশ খুলে দেয়া হচ্ছে। কাল বুধবার ফ্লাইওভারের সাতরাস্তা থেকে হলি ফ্যামিলি অংশটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চলাচলের জন্য উদ্বোধন করবেন।
প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী নাজমুল আলম এ প্রসঙ্গে বলেন, হলি ফ্যামিলি হাসপাতাল থেকে সাতরাস্তা পর্যন্ত ফ্লাইওভারের অংশটি খুলে দেয়ার জন্য আমরা পুরোপুরি প্রস্তুত। কাল বুধবার প্রধানমন্ত্রী এ অংশটি চলাচলের জন্য খুলে দেবেন।
পুরো প্রকল্পের ৭০ ভাগের মতো কাজ শেষ হয়েছে জানিয়ে প্রকল্প পরিচালক বলেন, তিন ধাপে পুরো প্রকল্পের কাজ শেষ করার পরিকল্পনা রয়েছে। সাতরাস্তা থেকে হলি ফ্যামিলি অংশ বুধবার খুলে দেয়ার পর বাংলামোটর থেকে মৌচাক অংশ জুনে খুলে দেয়া হবে। বাকিটা ডিসেম্বর বা জানুয়ারিতে খুলে দেয়া হতে পারে।
তিনি বলেন, প্রকল্পের মেয়াদ আগামী বছরের জুন পর্যন্ত হলেও এর আগেই সব কাজ শেষ হয়ে যাবে। রাজধানীর এফডিসি, মগবাজার, মৌচাক, শান্তিনগর, মালিবাগ সড়ক ও মগবাজার রেল ক্রসিংয়ে যানবাহনের ধারণক্ষমতা বৃদ্ধি করে যানজট নিরসনে এ ফ্লাইওভার প্রকল্পটি হাতে নেয়া হয়।
প্রকল্প সূত্র জানায়, কাল বুধবার প্রধানমন্ত্রী ফ্লাইওভার চড়ে সাতরাস্তা থেকে হলি ফ্যামেলিতে নামবেন। এরপরই সব ধরনের যান চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হবে ফ্লাইওভারের এ অংশটি। সরেজমিনে দেখা গেছে, ফ্লাইওভারের ঢালাই শেষ করা হয়েছে কয়েকদিন আগেই। ল্যাম্প পোস্টের জন্য বৈদ্যুতিক তার টানা হয়েছে। গার্ডারের কাজও শেষ হয়েছে। ফিনিশিং শেষে নির্মাণ শ্রমিকরা রঙ দেয়াও সম্পন্ন করেছেন।
জানা গেছে, ফ্লাইওভারের নির্মাণ কাজ তিন ভাগে ভাগ করা হয়েছে। একটি অংশে রয়েছে সাতরাস্তা-মগবাজার-হলি ফ্যামিলি পর্যন্ত। আরেকটি অংশে রয়েছে শান্তিনগর-মালিবাগ-রাজারবাগ পর্যন্ত। শেষ অংশটি বাংলামোটর-মগবাজার-মৌচাক পর্যন্ত।
মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভার প্রকল্পটি ২০১১ সালের ৮ মার্চ জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে (একনেক) অনুমোদন হয়। প্রথমে ২০১৩ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে এ ফ্লাইওভার প্রকল্পের কাজ শেষ করার কথা থাকলেও পরে দুই দফা সময় বাড়ানো হয়।আমাদের সময়.কম