যুগবার্তা ডেস্কঃ আজ রোববার বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। শনিবারও টঙ্গী অভিমুখী বাস, ট্রাক, ট্রেন, লঞ্চসহ বিভিন্ন যানবাহনে ছিল মানুষের ভিড়। দেশ-বিদেশের মুসল্লিদের পদচারণায় টঙ্গীর তুরাগ পাড়ের ইজতেমাস্থল এখন মুখরিত। আজ আখেরি মুনাজাতের আগ পর্যন্ত মানুষের এ ঢল অব্যাহত থাকবে। এ দিকে প্রথমবারের মতো দেশের ৬৪টি জেলাকে দুই বছরে চার পর্বে বিভক্ত করে এ বছর থেকে ইজতেমার আয়োজন করায় এবারের প্রথম পর্বের ইজতেমায় আগত মুসল্লিরা স্বস্তিতে ও নির্বিঘ্নে সময় কাটিয়েছেন বলে অংশগ্রহণকারীরা জানিয়েছেন। এলাকাবাসীও নানা ভোগান্তি থেকে অনেকটা মুক্ত ছিল।
জানা গেছে, আজ বিশ্ব ইজতেমার প্রথম দফার আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। বিদেশী নিবাসের পূর্ব পাশে বিশেষ মোনাজাত মঞ্চ থেকেই সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সাড়ে ১১টার মধ্যে শুরু হবে আখেরি মুনাজাত। এর আগে অনুষ্ঠিত হবে হেদায়েতি বয়ান। হেদায়েতি বয়ান ও আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে এবারের বিশ্ব ইজতেমার তিন দিনের প্রথম পর্ব। এরপর চার দিন বিরতি দিয়ে আগামী শুক্রবার শুরু হবে তিন দিনের বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব।
ইজতেমার মুরব্বিরা জানান, টঙ্গীর তুরাগ পাড়ে ইজতেমা ময়দানে মুসল্লিদের স্থান সঙ্কুলান না হওয়ায় এবং নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এবারও দুই পর্বে ইজতেমা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তবে প্রথমবারের মতো দেশের ৩২টি জেলা নিয়ে এ বছর ইজতেমার দুই পর্ব অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পরবর্তী বছরের (২০১৭ সালে) ইজতেমা বাকি ৩২ জেলা নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে। গত শুক্রবার ফজরের নামাজের পর থেকে আমবয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয় বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। এবার প্রথম পর্বে অংশ নেবে ঢাকার একাংশসহ ১৭টি জেলার তাবলিগ অনুসারীরা। আজ আখেরি মুনাজাতের মধ্য দিয়ে প্রথম পর্বের ইজতেমা শেষ হচ্ছে। এরপর চার দিন বিরতির পর ১৫ জানুয়ারি দ্বিতীয় পর্ব শুরু হবে। দ্বিতীয় পর্বে অংশ নেবে ঢাকার বাকি অংশসহ ১৬টি জেলার তাবলিগ অনুসারী। ১৭ জানুয়ারি দ্বিতীয় পর্বের আখেরি মুনাজাতের মধ্য দিয়ে সমাপ্তি ঘটবে দুই পর্বের এবারের বিশ্ব ইজতেমা।
এবারও তাবলিগের শীর্ষ মুরব্বিরা রেডিও-টিভিতে আখেরি মুনাজাত সরাসরি সম্প্রচারে অনুমতি দেননি। ক্যামেরায়ও মুরব্বিদের ছবি তোলা বারণ করে দিয়েছেন ইজতেমা কর্তৃপক্ষ। তারপরও কিছু কিছু বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ইজতেমা কর্তৃপক্ষের অজ্ঞাতে আখেরি মোনাজাত সম্প্রচার করার উদ্যোগ নিয়েছে।
আজ ইজতেমার মূল আকর্ষণ আখেরি মুনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। ইজতেমা মাঠের বিদেশী নিবাসের পূর্ব পাশে বিশেষ মোনাজাত মঞ্চ থেকে আজ সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সাড়ে ১১টার মধ্যে আখেরি মোনাজাত শুরু হবে বলে জানিয়েছেন গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এস এম আলম। এর আগে হবে হেদায়েতি বয়ান। আজ আখেরি মোনাজাতের আগ পর্যন্ত মুসল্লিদের ঢল অব্যাহত থাকবে। ইজতেমার আখেরি মোনাজাতে শরিক হতে বিপুলসংখ্যক মহিলা টঙ্গীর আশপাশে এসে অবস্থান নিয়েছেন। অনেকে তাদের আত্মীয়স্বজনদের বাড়িতে উঠেছেন।
গাজীপুরের ট্রাফিক বিভাগের সহকারী পুলিশ সুপার মো. সাখাওয়াত হোসেন জানান, শনিবার রাত ১২টা থেকে আজ রোববার আখেরি মোনাজাতের সময় পর্যন্ত ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের গাজীপুর মহানগরের ভোগড়া বাইপাস মোড় থেকে কুড়িল বিশ্বরোড, আব্দুল্লাহপুর-কালিয়াকৈর সড়কে সাভারের বাইপাইল থেকে আব্দুল্লাহপুর ও টঙ্গীর স্টেশন রোড থেকে মীরেরবাজার পর্যন্ত অ্যাম্বুলেন্স ও পুলিশের গাড়ি ছাড়া সাধারণ যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে আখেরি মোনাজাতের দিন আজ রোববার সকাল থেকে গাজীপুরের চান্দনা চৌরাস্তা এলাকা থেকে ইজতেমাস্থল পর্যন্ত মুসল্লিদের সুবিধার্থে প্রায় অর্ধশত বি আরটিসি বাস ও ব্যক্তি মালিকানাধীন আরো প্রায় অর্ধশত (ইজতেমার স্টিকার লাগানো) শাটল বাস চলাচল করবে।
বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে বাংলাদেশ রেলওয়ের পক্ষ থেকে আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে আখাউড়া, কুমিল্লা ও ময়মনসিংহসহ বিভিন্ন রুটে ২৮টি বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ ছাড়া আখেরি মোনাজাতের আগে ও পরে সব ট্রেন টঙ্গী স্টেশনে যাত্রাবিরতি করবে। টঙ্গী রেলওয়ে জংশন সূত্রে জানা গেছে, আজ আখেরি মুনাজাতের দিন জামালপুর-টঙ্গী একটি, আখাউড়া-টঙ্গী একটি, টঙ্গী-ময়মনসিংহ, লাকসাম-টঙ্গী রুটে বিশেষ ট্রেন যাতায়াত করবে। এ ছাড়া আখেরি মুনাজাতের আগে-পরে সব ট্রেন টঙ্গী স্টেশনে যাত্রাবিরতি করবে বলে জানিয়েছেন টঙ্গীর স্টেশন কর্মকর্তা মো. হালিমুজ্জামান।মাছুম বিল্লাহ, আমাদের সময়.কম