অসাম্প্রদায়িক সরকারের জন্য অসাম্প্রদায়িক প্রশাসন দরকার–ইনু

স্টাফ রিপোটার: সাম্প্রদায়িক হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ হিন্দু এলাকাসমূহ সরজমিন পরিদর্শনের জন্য জাসদের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসাবে আজ ১৯ অক্টোবর সকাল ১১টায় জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনুর নেতৃত্বে জাসদের একটি কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল সাম্প্রদায়িক হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ রংপুরের পীরগঞ্জের মাঝিপাড়া রামনাথপুর পরিদর্শন করেছেন। তিনি সেখানে হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ মন্দির-ঘর-বাড়ি পরিদর্শণ করেন, হামলার স্বীকার নারী-পুরুষদের কথা শুনেন, তাদের সমবেদনা জানান এবং তাদের দলের পক্ষ থেকে একবেলার খাবার ত্রাণসহায়তা প্রদান করেন। তিনি সেখানে সমবেত জনতার উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন। পরে তিনি পীরগঞ্জ প্রেসক্লাবে সাংবাদিক ও গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে কথা বলেন। জনাব ইনু সমবেত জনতার উদ্দেশ্যে বক্তব্য ও সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন, সরুকার-প্রশাসন-রাষ্ট্রের প্রাথমিক দায়িত্ব হিন্দুসম্প্রদায়ের নাগরিকসহ দেশের সকল নাগরিকের জান-মাল-ইজ্জতের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা নিশ্চিত করা। এব্যাপারের ব্যর্থতা বা গাফিলতির কোনো অজুহাত দেয়া, দায়িত্ব এড়ানোর কোনো সুযোগ নাই। তিনি পীরগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রদায়িক হামলা নিহত, আহত, ক্ষতিগ্রস্থ হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরন এবং ক্ষতিগ্রস্থ মন্দির-ঘর-বাড়ি নির্মান করে দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানান। জনাব ইনু বলেন, কোনো হিন্দুই তাদের পূজামন্ডপে কোরান শরীফ রেখে নিজের ধর্মের অবমাননা করবে না, নিজেদের জন্য বিপদও ডেকে আনবে না। তিনি বলেন, সাম্প্রদায়িক শক্তি ওৎ পেতেই থাকে উছিলা তৈরি করে গুজব রটিয়ে হিন্দুদের উপর হামলা জন্য। তিনি বলেন, দেশবাসীর সামনে এটা পরিস্কার হয়ে গিয়েছে যে সাম্প্রদায়িক শক্তি সুপরিকল্পিতভাবে কুমিল্লায় পূজামন্ডপে কোরান শরীফ রেখে গুজব রটিয়েছি হিন্দুদের উপর হামলার উছিলা তৈরির জন্য। জনাব ইনু বলেন, অসাম্প্রদায়িক সরকার পরিচালনার জন্য সমগ্র রাষ্ট্র ও প্রশাসন ব্যবস্থাকেই অসাম্প্রদায়িক হতে হবে। সকল সরকার, রাষ্ট্র, প্রশাসন এবং রাজনৈতিক দলের মধ্যে ঘাপটি মেরে লুকিয়ে থাকা সাম্প্রদায়িক ব্যক্তিদের চিন্থিত করতে হবে। তিনি বলেন, দেশের ৩২ হাজার পূজামন্ডবে উৎসবমুখর পরিবেশে দূর্গা পূজা পালিত হলো। যে কয়েকটি স্থানে সাম্প্রদায়িক শক্তি বর্বর সন্ত্রাস চালালো সেখানে প্রশাসনের কোনো ইচ্ছাকৃত নিষ্ক্রিয়তা, গাফিলতি, দূর্বলতা, অন্তর্ঘাত ছিল কি না, তা খতিয়ে দেখতে হবে। জনাব ইনু আজই বিকাল ৩ টায় রংপুর শহরে কালিবাড়ি মন্দির পরিদর্শন করেন এবং সেখানে রংপুর জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করেন এবং তাদের সাহস জোগান। জনাব ইনু সন্ধ্যা ৬টায় রংপুরের তারাগঞ্জে ইসকন মন্দির পরিদর্শনে যান এবং সেখানে পুরোহিত ও ইসকনের সদস্যদের সাথে কথা বলেন। আজ পীরগঞ্জ, রংপুর শহর, তারাগঞ্জ সফরে জাসদের এই কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলে জনাব হাসানুল হক ইনু এমপির সঙ্গে ছিলেন জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক কুমারেশ রায়, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আজিজুল হক, রংপুর মহানগর জাসদের সভাপতি সাইদুল ইসলাম, রংপুর মহানগর জাসদ নেতা আনোয়ার হোসেন, মনিরুজ্জামান মাসুদ, আব্দুর রাজ্জাক, একরামুল হক, ছাত্রলীগ (হা-ন) কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি ও ছাত্রলীগ রংপুর জেলা কমিটির সভাপতি ওসমান গনি প্রমূখ। ।

জাসদের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসাবে জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা শফিউদ্দিন মোল্লা সাম্প্রদায়িক হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী ইসকন মন্দির, ঠাকুর রাম চন্দ্র দেবের সমাধি ও রাধামাধব জিউস মন্দির পরিদর্শন করেন। এসময় তার সাথে ছিলেন নোয়াখালী জেলা জাসদের সভাপতি নুর আলম পারভেজ, সাধারণ সম্পাদক এড. আজিজুল হক বকসী, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (হা-ন) কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি মাসুদ আহাম্মেদ, জেলা জাসদ নেতা মফিজ মিয়া, ফারুক আল ফয়সাল, কাজী আবুল বাশার চৌধুরী, কাজী হেলাল, মোঃ জাহাঙ্গীর প্রমুখ।
জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রোকনুজ্জামান রোকন সাম্প্রদায়িক হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ কুমিল্লার নানুয়া দিঘীর উত্তর পাড়ের অস্থায়ী পুজা মন্ডপ, ক্ষতিগ্রস্থ কাপড়িয়াপট্টি চান্দমণি রক্ষা কালিমন্দির, ঠাকুর পাড়া দক্ষিণা কালিমন্দির ও ইস্কন মন্দির আশ্রম পরিদর্শন করেন। এসময় তার সাথে ছিলেন জাসদ কুমিল্লা জেলা সভাপতি অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান, জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় সদস্য কাজী সাইমুল হক, কুমিল্লা মহানগর পুজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শ্রী অচিন্দ্র দাস টিটু, জাসদের সহ-সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা ফরিদ আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মোতালেব হোসেন, চন্দন দাস, যুবনেতা মনিরুল ইসলাম, রিফাত আহমেদ মাসুম, সোয়েব খন্দকার প্রমূখ।
জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাম্প্রদায়িক হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ চাঁদপুরের হাজিগঞ্জ উপজেলার পুজামণ্ডপ ও বসতবাড়ি পরিদর্শন করেন। এসময় তার সাথে ছিলেন জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংস্কৃতিক সম্পাদক শহীদ আলমগীর, চাঁদপুর জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন মজুমদার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সোহেল আহম্মেদ, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (হা-ন) কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক রাশিদুল হক ননী, চাঁদপুর জেলা শাখার সভাপতি মিঠুন বিশ্বাস প্রমুখ।