অর্থমন্ত্রীর গোল্ডেন-৫ না, প্লাটিনাম-৫ পাওয়া উচিত-বাদশা

270

যুগবার্তা ডেস্কঃ প্রস্তাবিত ২০১৬-১৭ অর্থ বছরের বাজেটে প্রত্যক্ষ কর এর চেয়ে পরোক্ষ কর বেশি করে সাধারণ মানুষের উপর চাপ বাড়ানো হয়েছে। পরোক্ষ কর আসে আমজনতার কাছ থেকে, সেই পরোক্ষ করই বেশি রাখা হয়েছে। প্রত্যক্ষ কর কম ধরা হয়েছে, এজন্য ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে অর্থমন্ত্রীকে গোল্ডেন-৫ না, প্লাটিনাম-৫ পাওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি।
বুধবার দুপুরে জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত ২০১৬-১৭ অর্থ বছরের বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।
ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, বাজেট বড় হওয়ার জন্য ইতিবাচক ইঙ্গিত দেয়। এবারই প্রথম বাজেট শিরোনাম দিয়ে করা হয়েছে। যাতে সমতা ভিত্তিক সমাজ গঠনের স্বপ্ন দেখিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। কিন্তু কিভাবে সমতাভিত্তিক সমাজ বাস্তবায়ন করা হবে তার কোনো দিক নির্দেশনা দেখছি না। সমতা প্রতিষ্ঠার জন্য অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হবে। বছরে ৭৬ হাজার কোটি টাকা দেশের বাইরে চলে যাচ্ছে। ব্যাংকে যদি লুটপাট হয়ে যায়, তবে লক্ষ্য বাস্তবায়ন করতে পারবো না আমরা।
বাদশা আরও বলেন, আর্থিক প্রতিষ্ঠানের শৃঙ্খলা আগে ফিরিয়ে আনতে হবে। যে অর্থ বিদেশে পাচার হয়েছে সে অর্থ দিয়ে আমরা দুই বছরের বাজেট করতে পারি। কিভাবে এই অর্থ ফিরিয়ে আনা হবে তা বাজেটে উল্লেখ করা হয়নি।
ওয়ার্কার্স পার্টির এ নেতা তার বক্তৃতায় বলেন, প্রত্যক্ষ কর যদি পরোক্ষ কর এর চাইতে বেশি না থাকে তাহলে কিভাবে সমতা আসবে। পরোক্ষ কর আসে আমজনতার উপর থেকে। এই পরোক্ষ কর এর চাপ কমিয়ে প্রত্যক্ষ কর বাড়ানো দরকার। অর্থমন্ত্রী ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে গোল্ডেন-৫ পেয়েছেন। জিপিএ-৫ কেন প্রত্যক্ষ কর কম হওয়ার কারণে অর্থমন্ত্রীকে প্লাটিনাম-৫ পাওয়া উচিত। বাজেটে রাজস্ব আয় থেকে সাধারণ মানুষের উপকৃত হওয়ার সুযোগ নেই। এটা হলে সমতাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন বাস্তবায়ন সম্ভব হবে না।
তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, অর্থমন্ত্রীর বাজেট বক্তৃতা স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা সম্পর্কে কোনো শব্দ দেখলাম না। স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা বাংলাদেশের হৃদপিণ্ড অথচ এ সম্পর্কে কোনো বক্তব্য নেই। ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জাতি গোষ্ঠীর সামাজিক সুরক্ষার জন্য গত বছরের বাজেটেও কোনো বরাদ্দ দেওয়া হয়নি। এবারের বাজেটেও দেওয়া হয়নি।
ক্ষুদ্র-নৃতাত্ত্বিক জাতিগোষ্ঠীর জন্য এক হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, অর্থমন্ত্রী তাদের কথা ভুলে যান, গরীব মানুষের কথা ভুলে গেলে কিভাবে সমতাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠা করবে।