অপরাধী আড়াল করতেই ইউজিসি কর্মকর্তা হত্যা

58

মেডিক্যাল পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে গ্রেপ্তার হওয়া বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সহকারী পরিচালক ওমর সিরাজ র‌্যাব হেফাজতে মারা গেছেন। বিশিষ্টজনদের দাবি, প্রকৃত অপরাধীদের আড়াল করতেই ইউজিসির কর্মকর্তা সিরাজকে হত্যা করা হয়েছে। এর সঙ্গে কোটি কোটি টাকার বাণিজ্য রয়েছে। বিষয়টির বিচার বিভাগীয় তদন্তেরও দাবি জানিয়েছেন বিশিষ্টজনরা। একই সঙ্গে ওমর সিরাজ র‌্যাবের কাছে যে বক্তব্য রেখেছেন শিগগির তা জাতির সামনে তুলে ধরার দাবি জানান তারা।
শুক্রবার বিকেলে শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা বাতিল করে পুনরায় পরীক্ষা গ্রহণ এবং এর সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে শিক্ষক-অভিভাবক ও বুদ্ধিজীবী সংহতি সমাবেশে বক্তব্য দিতে গিয়ে বিশিষ্টজনেরা এসব দাবি করেন।
গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ইউজিসি কর্মকর্তা হত্যা একটি সুপরিকল্পিত ঘটনা। মূলত প্রকৃত অপরাধীদের আড়াল করতেই এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে। এর জন্য বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠনের দাবি জানান তিনি। আরো বলেন, শিক্ষার্থীরা তাদের ন্যায্য দাবি ফিরে পাওয়ার জন্য রাজপথে এসে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছে। সরকারের উচিত অবিলম্বে তাদের এ যৌক্তিক দাবি মেনে নিয়ে পুনরায় ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ করা।
লেখক সাংবাদিক সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, বর্তমানে দেশে প্রশ্নপত্র ফাঁসসহ নানা অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে। আমাদের সরকার এতো অপ্রতিরুদ্ধ ও শক্তিমান যে, তারা একজন ছাত্রকে ১০ নম্বরের পরিবর্তে ৯৯ নম্বর পাইয়ে দিতে পারে। প্রশ্নপত্র ফাঁস চুরি-ডাকাতির মতো একটি ফৌজদারী অপরাধ। এদের চোর-ডাকাতের মতো শাস্তি দিতে হবে। তিনি বলেন, দ্বিতীয় ফৌজদারী অপরাধ হচ্ছে যৌক্তিক আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর নির্যাতন। এছাড়া তৃতীয় ফৌজদারী অপরাধ হচ্ছে র‌্যাবের হেফাজতে প্রশ্নফাঁসের অভিযোগে আটক ইউজিসি কর্মকর্তার মৃত্যু। এসব অপরাধের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও ভর্তি পরীক্ষা পুনরায় গ্রহণের দাবি জানান তিনি।
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতির অধ্যাপক আনু মোহাম্মদ বলেন, ইউজিসি কর্মকর্তা হত্যার পেছনে কোটি কোটি টাকার বাণিজ্য রয়েছে। রাঘব বোয়ালরা এর সঙ্গে জড়িত। মৃত ইউজিসি কর্মকর্তা র‌্যাবের কাছে যে বক্তব্য রেখেছেন শিগগিরই তা জাতির সামনে তুলে ধরতে হবে। একই সঙ্গে শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিতে হবে।
ডা. ইমরান এইচ সরকার বলেন, শুধু ভর্তি পরীক্ষা পুনরায় গ্রহণ নয়, এর সঙ্গে জড়িত সাইকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে, যাতে ভবিষ্যতে আর কেউ এ জাতীয় কাজ করার সাহস না পায়। তিনি বলেন, প্রশ্নপত্র ফাঁসের অপসংস্কৃতি রুখে দিতে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার রীতি বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত আমরা রাজপথে আছি, থাকবো।
এ সময় আন্দোলনের মুখপাত্র খালিদ সাইফুল্লাহ দুই দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেন। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে শনিবার সকাল ১০টা থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গণস্বাক্ষর গ্রহণ, আলোকচিত্র ও ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনী। রোববার সকাল ১০টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় বরাবর স্মারকলিপি প্রদানের উদ্দেশ্যে পদযাত্রা।