অধ্যক্ষ নিজাম উদ্দিনের শোকাহত পরিবারের পাশে বানারীপাড়া পৌর মেয়র

7

রাহাদ সুমন,বিশেষ প্রতিনিধিঃ সদ্য প্রয়াত বরিশালের বানারীপাড়ার বিশারকান্দি শেরে বাংলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ,স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের উপজেলা শাখার সভাপতি ও উপজেলা বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি নিজাম উদ্দিনের বাড়িতে গিয়ে শোকাহত পরিবারকে সমবেদনা জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও বানারীপাড়া পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট সুভাষ চন্দ্র শীল। ১৭ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বিকালে তিনি প্রয়াত অধ্যক্ষ নিজাম উদ্দিনের বিশারকান্দি ইউনিয়নের মরিচবুনিয়া গ্রামের বাড়িতে গিয়ে তার শোকার্ত অশীতিপর বৃদ্ধা মা,স্ত্রী,ও তিন শিশু সন্তানকে সান্তনা দিয়ে সর্বদা তাদের পাশে থাকার কথা বলেন। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন নতুন মুখ সাহিত্য সংস্কৃতি পরিষদের সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন মানিক,উপজেলা বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মাহবুব আলম,উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হোসেন,উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক সুলতান হোসেন সিকদার প্রমুখ। এ প্রসঙ্গে বানারীপাড়া পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট সুভাষ চন্দ্র শীল বলেন,অধ্যক্ষ নিজাম উদ্দিন ছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবিনাশী আদর্শের একজন সৃষ্টিশীল মানুষ। যিনি আমৃত্যু শিক্ষাসহ এলাকার সার্বিক উন্নয়নে নিঃস্বার্থ ও নিরলসভাবে কাজ করে গেছেন। তার ধ্যান-মন- জ্ঞানই ছিল এলাকার উন্নয়ন।
এক সময়ের অবহেলিত দুর্গম জনপদ বিশারকান্দিসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় ঘরে ঘরে শিক্ষার আলো জ্বালিয়ে দিয়ে তিনি আলোকিত জনপদ গড়ে তুলতে অগ্রণী ভূমিকা পালণ করেছেন। তার এ অকাল প্রয়াণে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। মহান স্রষ্টা যেন তাকে স্বর্গবাসী করেন।প্রসঙ্গত অধ্যক্ষ নিজাম উদ্দিন (৫২) বুধবার ( ১৫ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৫টার দিকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন । ডায়রিয়াসহ পেটের পীড়ায় আক্রান্ত হয়ে পেশার কমে যাওয়ায় ওই দিন সকালে তাকে প্রথমে বানারীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। পরে সেখান থেকে তাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে রেফার করা হয়। বৃহস্পতিবার ( ১৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০ টায় বিশারকান্দি শেরে বাংলা ডিগ্রী কলেজ মাঠে প্রথম ও বেলা সাড়ে ১১টায় মরিচবুনিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে দ্বিতীয় এবং ১২ টায় নিজ বাড়ির আঙিনায় তৃতীয় জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে পিতা ও ভাইয়ের কবরের পাশে তাকে চির নিন্দ্রায় শায়িত করা হয়।
বিশারকান্দি ইউনিয়নের মরিচবুনিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও শেরে বাংলা ডিগ্রী কলেজের প্রতিষ্ঠাকালীন থেকে আমৃত্যু অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালণ করা শিক্ষানুরাগী নিজাম উদ্দিন ঘরে ঘরে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিয়ে দুর্গম ওই জনপদকে আলোকিত জনপদে রূপান্তর করে নিজে ‘আলোর বাঁতিঘরে’ পরিণত হয়েছিলেন। তিনি তার মেধা ও প্রজ্ঞা দিয়ে তীল তীল করে আদর্শ ওই বিদ্যাপীঠ দুটি গড়ে তুলেছেন। তার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই চারতলা বিশিষ্ট ভবনসহ প্রয়োজনীয় অবকাঠামো গড়ে ওঠে। তার অকাল মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মৃত্যুকালে তিনি বৃদ্ধা মা,স্ত্রী,এক পুত্র ও দুই কন্যাসহ অসংখ্য শুভানুধ্যায়ী রেখে গেছেন। বিশারকান্দি ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান প্রয়াত আ.হালিম তার বড় ভাই।