দুর্নীতির বিরুদ্ধে সঠিক পদক্ষেপ নিলে ছাত্রলীগের অস্তিত্ব সংকটে পড়বে

2

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিঃ শিক্ষা দিবসের ৫৭তম বর্ষপূর্তিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় বিভাগীয় ছাত্র সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন।
আজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় শিক্ষা দিবসের ছাত্র সমাবেশ করে সংগঠনটি। সমাবেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়সহ মানিকগঞ্জ, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।
সমাবেশে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপমহাদশের প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা কমরেড মঞ্জুরুল আহসান খান, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি মেহেদী হাসান নোবেল ও সাধারণ সম্পাদক অনিক রায়। ঢাকা মহানগর সংসদের সভাপতি জহরুলাল রায়ের সঞ্চালনায় সমাবেশের সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি ও ঢাকা বিভাগীয় সমন্বয়ক মো. ফয়েজ উল্লাহ।
সমাবেশে কমরেড মঞ্জুরুল আহসান খান বলেন, “শেখ হাসিনা যদি দুর্নীতির বিরুদ্ধে অ্যাকশনে নামে তাহলে এই দেশে ছাত্রলীগ নামে কোন সংগঠন থাকবে না। আর শেখ হাসিনা যদি দুর্নীতিবাজ, লুটপাটকারী, নিপীড়ক ছাত্রলীগকে বিলুপ্ত না করে তাহলে শেখ হাসিনাকে বিলুপ্ত হতে হবে।”
অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, “শিক্ষার উন্নয়ন বলতে এই সরকার কেবল মাত্র অবকাঠামো গড়ে তোলাই বুঝে। কারণ অবকাঠামো গড়তে গিয়ে উপর থেকে নিচ সব জায়গায় কমিশন যায়। গবেষণা, শিক্ষার মানোনśয়ন থেকে কমিশনও পাওয়া যায় না তাই গবেষণায় বাজেটও দেওয়া হয়না।”

সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের কার্যকরী সদস্য রাকিবুল রনি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দপ্তর সম্পাদক খায়রুল হাসান জাহিন, ঢাকা জেলার সভাপতি আরিফুল ইসলাম সাব্বির, মানিকগঞ্জের সভাপতি দুর্জয়, গাজীপুর জেলার সভাপতি মো. দিদারুল ইসলাম, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক কফিল উদ্দিন মোহাম্মদ শান্ত, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ সম্পাদক রাগিব নাঈম, ঢাকা মহানগর সংসদের সাধারণ সম্পাদক ফয়জুর মেহেদী ও নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সুমাইয়া সেতু।
সমাবেশ শেষে ছাত্র ইউনিয়ন নেতা কর্মীদের অংশগ্রহণে একটি মিছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে।