বাংলাদেশ ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড চূড়ান্ত সংস্করণ গেজেট আকারে প্রকাশের জন্য মন্ত্রীর নিকট হস্তান্তর

2

যুগবার্তা ডেস্কঃ আজ সোমবার সচিবালয়স্থ গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে মন্ত্রীর দপ্তর কক্ষে বাংলাদেশ ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড (বিএনবিসি) ২০১৭ (প্রকাশিতব্য ২০১৯) এর চূড়ান্ত সংস্করণ গেজেট আকারে প্রকাশের জন্য গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমের নিকট হস্তান্তর করেছে বিএনবিসি স্টিয়ারিং কমিটি।

হস্তান্তরকালে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ শহীদ উল্লা খন্দকার, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ আখতার হোসেন, গণপূর্ত অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ সাহাদাত হোসেন, রাজউকের চেয়ারম্যান ড. সুলতান আহমেদ, হাউজিং এন্ড বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক মোহাম্মদ শামীম আখতার, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের পুর কৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. রাকিব আহসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যুরো অব রিসার্চ টেস্টিং এন্ড কনসালটেশন (বিআরটিসি) এর সহযোগিতায় হাউজিং এন্ড বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউট বিএনবিসি ২০১৭ এর চূড়ান্ত সংস্করণ তৈরী করেছে। এই বিল্ডিং কোড প্রণয়নের জন্য গঠিত স্টিয়ারিং কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন স্থাপত্য অধিদপ্তরের প্রধান স্থপতি কাজী গোলাম নাসির এবং সদস্য সচিব ছিলেন হাউজিং এন্ড বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক মোহাম্মদ শামীম আখতার।

তিনটি ভলিউমের বিএনবিসি ২০১৭ এর চূড়ান্ত সংস্করণ ২০১৯ সালে গেজেট আকারে প্রকাশ হতে যাচ্ছে এবং গেজেট প্রকাশের পর এটি অনতিবিলম্বে কার্যকর হবে। গেজেট প্রকাশের পর বিএনবিসি ২০১৭ ভবন নির্মাণের সাথে জড়িত সকল পেশাজীবীদের জন্য সুষ্ঠুভাবে ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে তাদের কার্যক্রম পরিচালনায় অত্যন্ত সহায়ক হবে।

কারিগরী দিক থেকে বিএনবিসি’র বর্তমান সংস্করণ যুগোপযোগী ও সর্বাধুনিক তথ্যসমৃদ্ধ নীতিমালা। কাঠামো কৌশল, স্থাপত্য কৌশল, ভিত্তি কৌশল, অগ্নি প্রতিরোধ, প্লাম্বিং, তড়িৎ কৌশল, যন্ত্র কৌশল ইত্যাদি কারীগরি বিষয়ে এই কোডে সুস্পষ্ট দিক নির্দেশনা রয়েছে। আরেকটি উল্লেখযোগ্য দিক হচ্ছে, এই কোড বাস্তবায়নের জন্য এতে বাংলাদেশ বিল্ডিং রেগুলটরি অথরিটি গঠনের প্রস্তাব সংযোজন করা হয়েছে।

বিএনবিসি ২০১৭ গেজেট আকারে প্রকাশের পরে বাংলাদেশের সকল ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে এটি মেনে চলা আইনগতভাবে বাধ্যতামূলক হবে।